দুর্গাপুরে মসজিদ কমিটিতে সভাপতির পদ নিয়ে দ্বন্দ, দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

36
দুর্গাপুর প্রতিনিধি:  রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার যুগিশো তোতার পাড়া জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটিতে সভাপতির পদ নিয়ে গ্রামের মুসল্লিদের দু’পক্ষের মধ্যে দ্বন্দের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ তুলেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে মুসল্লিদের একপক্ষ মানববন্ধন করেছে। অপর পক্ষ মানববন্ধনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেছে। এর আগে সোমবার রাতে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উভয় পক্ষকে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে বলেছেন।
মসজিদে তালা লাগিয়ে নামাজ বন্ধের অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে যুগিশো কেয়াতোলা বাজারে মানববন্ধন করে মুসল্লিদের একপক্ষ । এ সময় মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সোমবার রাতে যুগিশো গ্রামের গোলাম রসূল, ইব্রাহিম আলী, আলাউদ্দিন, ইসরাইল, বেলাল, জালাল, নুরুল ইসলাম এবং নজরুল ইসলাম সহ আরো কয়েকজন ব্যক্তি মসজিদের কমিটি গঠণ করাকে কেন্দ্র করে জোরপূর্বক মসজিদে তালা লাগিয়ে দেয়। এ সময় মসজিদে মাগরিব ও এশার আজান ও নামাজ হয়নি। মসজিদে যারা তালা দিয়েছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন বক্তারা।
অপরদিকে, একই সময় মুসল্লিদের অপর পক্ষ মসজিদে তালা দেয়ার বিষয়টি ভিত্তিহীন দাবি করে বিক্ষোভ করেন। মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি ইসরাইল মন্ডল বলেন, মসজিদে কেউ তালা দেয়নি। তবে সভাপতির পদ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়েছে। স্থানীয় যুবলীগ নেতা আলামিন সহ কয়েকজন বিষয়টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছেন।
ঘটনার পর থানা পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য এসে সমস্যার সমাধান করেছে। মসজিদে আবার আগের মতোই নামাজ আদায় হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।
ইউপি সদস্য জিয়াউর রহমান বলেন, মুসল্লিদের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছিল। থানা পুলিশের সহায়তায় উভয় পক্ষের মুসল্লিরা আবার এক সঙ্গে নামাজ আদায় করছে।
দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল হক বলেন, খবর পেয়ে সোমবার রাতেই সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। স্থানীয় ইউপি সদস্যর সহায়তায় মুসল্লিদের কথা বলে একই সাথে নামাজ আদায় সহ সহাবস্থান করতে বলা হয়েছে।
x