পশ্চিম রাজেন্দ্রপুরে কবরস্থান ও প্রতিমা বিসর্জ্জন’র কাজ শুরু- ঊচ্ছাসে উজ্জিবীত যৌথধর্ম ঐক্যপরিষদ

80

এস.এম রিফাত হোসেন বাঁধন, নিজস্ব প্রতিবেদক: রংপুর সিটি করপোরেশনের ১১ নং ওয়ার্ডের পশ্চিম রাজেন্দ্র পুর পাঁচপীরের মাজার এলাকায় ১ একর ৮৯ শতাংশ সরকারি খাসঁ জমিতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের রীতিচর্চায় স্থানীয় মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের জন্য নির্দিষ্ট কবরস্থান ও সনাতন ধর্মাবলম্বী হিন্দু-বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের পবিএ দেব-দেবীদের মূর্তি পূজাপার্বণের প্রতিমা বিসর্জনের জন্য পুকুর খননের কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে।

সরেজমিনে জানা যায়, দীর্ঘদিন বিভিন্ন জটিলতায় আটকে থাকার পর বুধবার ( ২২ জুন) সকাল থেকে রসিক ১১ নং ওয়ার্ডে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে উক্ত কাজ শুরু করতে দেখা যায়।

এলাকাবাসী জানায়,রংপুর মেট্রোপলিশের হাজিরহাট থানাধীন পশ্চিম রাজেন্দ্রপুর পাঁচপীর মাজার সহ পুরো ১১ নং ওয়ার্ডে সরকারি কোনো কবরস্থান নেই। ফলে এলাকার কেউ মৃত্যুবরণ করলে তার দাফনের জন্য বিড়ম্বনা পড়তে হয়। এছাড়া হিন্দুধর্মের লোকদের পূজা সহ বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতা ও প্রতিমা বিসর্জনের জন্য পুকুর না থাকায় প্রতি বছর দূর্গাপুজার সময় তারগঞ্জ যেতে হয়।এতে সড়কপথে দূর্ঘটনাসহ নানাবিধ বিড়ম্বনায় ভোগান্তি পোহাতে হয়।

তবে সংশ্লিষ্ট ধর্ম ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়,ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের স্পর্শকাতর’ চলমান প্রক্রিয়া কাজটি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার জন্য পুলিশ প্রশাসনসহ সকল ধর্মাবলম্বীদের পারস্পরিক সহযোগিতার আহ্বান জানান তারা।

এছাড়া স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের জন্য নির্দিষ্ট কবরস্থান চিহ্নিত ও হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রতিমা বিসর্জনের পুকুর খননের কাজ টি অবশ্যই প্রশংসাজনক রংপুর সিটি কর্পোরেশন ব্যতিক্রমী একটি সামাজিক মূল্যবোধের অন্যতম মানবিক জাতি গঠনের প্রয়াস চেতনার অগ্রযাত্রা বলা যেতে পারে।

তবে,অসকস বাংলাদেশ অরাজনৈতিক সংগঠনের নেতারা বলছে, দীর্ঘ অবহেলিত সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত বর্ধিত ওয়ার্ড গুলোর মধ্যে এটি একটি এবং ধর্মীয় সম্প্রদায়ের এই কাজটিতে সকলেই নিজ উদ্যোগে ঐক্যবদ্ধ হয়ে পারস্পরিক সহযোগিতা করছে বলে ঘটনাস্থলে দেখতে গিয়ে জানতে পেরেছি।

এছাড়া সনাতন ধর্মাবলম্বী হিন্দু-বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের পবিএ দেব-দেবীদের মূর্তি পূজাপার্বণের প্রতিমা বিসর্জনের জন্য দূরে যাওয়ার কষ্ট অনেকটা লাঘব হবে এবং কমবে ভোগান্তিসহ দূর্ঘটনার প্রবনতা।

x