পুঠিয়ায় মুচলেকা দিয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধ

81

পুঠিয়া প্রতিনিধিঃ পুঠিয়ায় মুচলেকা দিয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধ করলো মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা। মঙ্গলবার বেলা ১১টার সময় উপজেলার সদর ইউনিয়নের বারইপাড়া গ্রামে বাল্যবিবাহ চলাকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ বাল্যবিবাহ বন্ধ করা হয়। জানাগেছে, পুঠিয়া সদর ইউনিয়নে বারইপাড়া গ্রামের আব্দুস সালমের মেয়ে ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী ইতি খাতুন (১৬) এর সাথে পার্শ্ববর্তী চারঘাট উপজেলার পাইটখালি গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে সুরুজ আলীর সাথে বিয়ে ঠিক হয়। সব ঠিকঠাক চলছিলো। বর ও বর যাত্রিদের জন্য রান্না বান্নার প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। বর আসবে দুপুরে। দুপুরের খাওয়া দাওয়া শেষে বিয়ে হবে বর ও কানের। হঠাৎ মাঝখানে বাধ সাধে পুঠিয়া উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা। তিনি ও তার অফিসের কর্মচারীরা কনের বাড়িতে গিয়ে উপস্থিত। সেসময় শুরু হয় কাউন্সিলিং। এতে রাজি হওয়ায়। কনের বাবার মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় তাদের। এবিষয়ে পুঠিয়া উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোছাঃ ডালিয়া পারভিন জানান, আমরা বাল্যবিবাহর খবর পেলে প্রথমে কাউন্সিলিং করি। এতে তারা রাজি হলে মুচলেকার মাধ্যমে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়। আর কাউন্সিলিংএ রাজি না হলে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জেল জরিমানা করে বাল্যবিবাহ বন্ধ করে থাকি।

x