প্রযোজকের কোন টাকা গুনতে হবে না সিনেমা হল প্রদর্শনে— অারাফাত

0 634

আলমগীর,বিনোদন :
বাংলাদেশের নতুন কোম্পানী লাইভ এস.কে টেকনোলজিস্ সাধারণ প্রযোজকের কথা চিন্তা করে সিনেমা হলে স্থাপন করেতে যাচ্ছে ডিজিটাল সিনেমা প্রজেকশন সিস্টেম।
প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের সকল সিনেমা হলে বিনামূল্যে সর্বাধুনিক প্রজেক্টর, সাউন্ড ও সার্ভার মেশিন বিতরণ শুরু করেছে। প্রথমে সার্ভার সিস্টেম বিতরণের মাধ্যমে এই কার্যক্রম শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে শর্ত সাপেক্ষ দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রজেক্টর ও সাউন্ড সিস্টেম বিতরণ করা হবে।
লাইভ এস.কে টেকনোলজিস এর ডিরেক্টর ইয়াসির আরাফাত বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে চলচ্চিত্র ব্যবসার উন্নয়নের জন্য এই উদ্যোগ নিয়েছি। একটি সুপার হিট সিনেমার জন্য একজন প্রযোজককে গুনতে হয় ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা। শুধুমাত্র তাই নয় প্রদর্শন মেশিনের ভাড়ার জন্য অনেক হল মালিক ছবি চালাতে পারেন না। এতে করে দিনে দিনে হলের সংখ্যাও কমে যাচ্ছে।’তিনি আরও বলেন, ‘সাধারণ প্রযোজক ও হল মালিকদের কথা ভেবেই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। আর ছবি প্রদর্শনের ক্ষেত্রে সিনেমা হল মালিক ও প্রযোজকের মতমতই হবে একমাত্র সিদ্ধান্ত।’
লাইভ এস.কে টেকনোলজিস্-এর ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর তামজিদ-উল-আলম অতুল বলেন, ‘চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকের সাথে আলোচনা করেই আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি। শ্রদ্ধেয় মিয়া ভাইয়ের (চিত্রনায়ক ফারুক) সাথে আলোচনা করেছি। এছাড়া হল মালিক সমিতি, প্রদর্শক, বুকিং এজেন্ট সমিতি, বিশিষ্ট প্রযোজকদের সাথে আলোচনা করেছি। লাইভ এস.কে টেকনোলজিস এর সার্ভার থেকে কোনো ভাবে মুভি পাইরেসি করা সম্ভব নয়। সবার সহযোগিতা পেলে আমরা আরও নতুন কিছু করার চিন্তা করছি। তার মধ্যে আছে ই-টিকিটিং, হলের পর্দা পরিবর্তন ও মহিলাদের জন্য আলাদা টয়লেটের ব্যবস্থা করা।’
প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের জন্য প্রযোজককে এককালীন মাস্টারিং চার্জ ৫০,০০০/- টাকা। আমদানী, যৌথ প্রযোজনা ও বিদেশী ছবির জন্য এককালীন মাস্টারিং চার্জ ২,০০,০০০/- প্রদান করতে হবে। পুরনো বাংলাদেশি ছবির জন্য কোনও মাস্টারিং চার্জ লাগবে না।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x