প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাইডেনের

0 ১৭৯
মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি : রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হবে আগামী বছরে অর্থাৎ, ২০২৪ সালে। এই নির্বাচনে ফের লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন দেশটির ৪৬তম প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিলেন তিনি। এক ভিডিও বার্তায় এই ঘোষণা দেন ডেমোক্র্যাট নেতা। আজ মঙ্গলবার (২৫ এপ্রিল) এ তথ্য জানিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।

প্রতিবেদনে ব্রিটিশ গণমাধ্যমটি জানায়, জো বাইডেন আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের প্রচারণা শুরু করেছেন। এক ভিডিও বার্তায় ২০২৪ সালের নির্বাচনে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। তাঁকে আরও চার বছরের সুযোগ দেওয়ার জন্য মার্কিনিদের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

২০১৯ সালে রাজনীতিতে ফেরার চতুর্থ বার্ষিকীতে মনোনয়ন প্রার্থিতার ঘোষণা দিয়েছেন বাইডেন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য বাইডেনের এটি তৃতীয় লড়াই। বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্টের রানিং মেট হিসেবে থাকবেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ ক্ষমতাধর নারী কমলা হ্যারিস। একই দিনে তিনিও নির্বাচনের প্রচার শুরু করেছেন।

গার্ডিয়ান বলছে, চার বছরের আগের থেকে বর্তমান সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেক্ষাপটে ব্যাপক পরিবর্তন হয়েছে। এখনও মহামারি নিয়ে আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে দেশটির জনগণ। মহামারিতে দেশটিতে ইতোমধ্যে ১১ লাখেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। একইসঙ্গে দেশটির ইতিহাসের সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি দেখা দিয়েছে। এ ছাড়া গর্ভপাত, বন্দুকযুদ্ধের মতো ঘটনায় মার্কিনিরা দুভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে।

এদিকে, জনপ্রিয়তায় প্রায় তলানিতে রয়েছেন বাইডেন। বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্টের বয়স নিয়েও উদ্বেগ রয়েছে। ইতোমধ্যে তিনি মার্কিন ইতিহাসের বয়স্ক প্রেসিডেন্ট। ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে জিতে যদি প্রেসিডেন্ট হয়ে যান তাহলে দ্বিতীয় মেয়াদের তার বয়স হবে ৮৬ বছর। তবে, নিজের শাসনামলে বেশ কিছু অর্জন রয়েছে বাইডেনের। এর মধ্যে রয়েছে গণটিকাদান, জলবায়ু ও স্বাস্থ্যের ওপর উত্তরাধিকার সংজ্ঞায়িত নীতি অর্জন ও প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ মহিলা হিসেবে কেতানজি ব্রাউন জ্যাকসনকে বিচারপতি হিসেবে।

আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে ভিডিও বার্তায় সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও রিপাবলিকান নেতা ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকদের সমালোচনা করেছেন বাইডেন। তাদের চরমপন্থি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন তিনি। ওই ভিডিওতে বাইডেন বলেন, ‘স্বাধীনতা, ব্যক্তিগত স্বাধীনতা মার্কিনিদের খুবই প্রয়োজন। এর থেকে প্রয়োজনীয়তা আর কিছুই নেই। নিজের প্রথম শাসনামলে আসি কাজ করেছি। গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করেছি। অধিকার রক্ষায় আমি কাজ করেছি। সবক্ষেত্রে স্বচ্ছতা আনার চেষ্টা করেছি। তবে, আপনারা জানেন, গোটা দেশজুড়ে মাগা (ট্রাম্প সমর্থনকারী) চরমপন্থি আমাদের স্বাধীনতা খর্ব করতে চায়। সমাজের নিরাপত্তা কমিয়ে দিতে চায়। এ জন্য আপনাকে সারাজীবন ভুগতে হবে। ধনকুবেরদের ওপর কর কমাতে চায় তারা। বইয়ের ওপর তারা নিষেধাজ্ঞা দেয়।’

বাইডেন আরও বলেন, ‘চার বছর আগে আমি যখন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়াই করি, আমি দেশের মূল আত্মাকে ফিরিয়ে আনতে লড়াই করি। এই লড়াই এখনো চলমান। এ জন্যই আমি ফের নির্বাচনে লড়ছি। কারণ, আমি যুক্তরাষ্ট্রকে চিনি। আমি জানি, আমরা ভালো এবং ভদ্র মানুষ। আমি বিশ্বাস করি, এখনো আমাদের দেশের মানুষ সততাকে সম্মান করে। আমরা বিশ্বাস করি, সবাই সমান। চলেন, সবাই মিলে কাজটি শেষ করি।’

এর আগে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়ার ঘোষণা দিয়েছেন রিপাবলিকান নেতা ট্রাম্প। পরে নিকি হেলি ও ভারতীয় বংশোদ্ভূত বিবেক রামাস্বামীও রিপাবলিকান প্রার্থী হিসেবে লড়ার ঘোষণা দেন। আর ডেমোক্র্যাট পার্টি থেকে প্রথম প্রার্থী হিসেবে লড়ার ঘোষণা দিলেন বাইডেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.