ফুলবাড়ীর জয়ী করোনা যোদ্ধাকে শুভেচ্ছা জানালেন উপজেলা প্রশাসন

141

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : রাতের আঁধারে এনামুল হকের বাড়ির গেটে সরকারি গাড়ি, ডালা ভর্তি ফলমূল হাতে গাড়ি থেকে নেমে আসেন কয়েকজন। সামনে এগিয়ে আসতেই দেখা যায়, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাসহ পুলিশ সদস্যদের। কাছে যেতেই শোনা যায়, শুভেচ্ছার ‘জয়ধ্বনী’। হাতে তুলে দেওয়া হয় ডালা ভর্তি ফলমূলসহ ছাড়পত্র।

এমনই চিত্র দেখা গেছে, দিনাজপুরেরর ফুলবাড়ী উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের মধ্যমপাড়া গ্রামে। এনামুল হক ওই গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে এবং উপজেলার প্রথম করোনা পজেটিভ আসা রোগী ছিলেন।

করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে পাওয়ায় গত মঙ্গলবার রাত সোয়া ৯টায় এনামুল হকের বাড়িতে গিয়ে তার হাতে ডালা ভর্তি ফলমূল ও করোনা মুক্ত ছাড়পত্র তুলে দেন উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুস সালাম চৌধুরী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ হাসানুল হোসেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এটিএম হামীম আশরাফ, থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ফখরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুল আজিজ মাস্টার প্রমুখ।

জয়ী করোনা যোদ্ধা এনামুল হক বলেন, ‘চাকরির সুবাধে নারায়ণগঞ্জ থাকাকালে করোনাভাইরাস প্রভাব শুরু হলে এতে গত ৭ এপ্রিল এনামুল বাড়ী ফিরে আসেন। শারীরিক সমস্যা দেখা দেওয়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মাধ্যমে ১২ এপ্রিল নমুনা পরীক্ষা করান। এতে গত ১৪ এপ্রিল নমুনা পরীক্ষায় তার ফলাফল আসে পজিটিভ। এরপর তিনি স্বাস্থ্য বিভাগের সমস্ত নিয়মনীতি অনুসরণ করে বাড়ীতে অবস্থান করে চিকিৎসা নেন। এরপর দুই দফায় আবারো নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করার ব্যবস্থা করে স্বাস্থ্য বিভাগ। এতে দুইবারেই ফলাফল নেগেটিভ আসে। গত মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) রাত সোয়া ৯ টায় ডালা ভর্তি ফলমূল ও ছাড়পত্র হাতে আসেন কয়েকজন কর্মকর্তা। স্বাস্থ্য বিভাগের নিয়মনীতি অনুসরণ করেই তিনি সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পেরেছেন।’

করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ হাসানুল হোসেন বলেন, ‘এ পর্যন্ত ফুলবাড়ী উপজেলা থেকে ৫০ জন রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালসহ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এরমধ্যে ৪০ জনের রিপোর্ট পাওয়া গেছে। ৪০ জনের মধ্যে এক মাত্র এনামুল হক ছিলেন পজিটিভ এবং অন্য ৩৯ জন ছিলেন নেগেটিভ। সেই এনামুল হকও এখন নেভেটিভ হয়ে যাওয়ায় আপাতত ফুলবাড়ী এখন করোনাভাইরাস মুক্ত হয়েছে। তবে ১০ টির ফলাফল এখনও পাওয়া যায়নি।’

উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুস সালাম চৌধুরী বলেন, ‘এনামুল হক করোনাভাইরাস মুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে আপাতত ফুলবাড়ী উপজেলা করোনাভাইরাস মুক্ত হয়েছে। এটি অব্যাহত রাখতে প্রয়োজনীয় কাজ করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগ ও পুলিশ সদস্যসহ জনপ্রতিনিধিরা কাজ করছেন। এসব কাজে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করছেন গণমাধ্যমকর্মীরা।’

 

ফুলবাড়ীতে সিপিবি’র খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে গতকাল বুধবার উপজেলা শাখা বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) ‘অস্বচ্ছল জনগোষ্ঠী মাঝে অবিচল খাদ্য সহায়তা’ কর্মসূচির আওতায় বাবুর্চি ইউনিয়ন ও ডেকোরেটর শ্রমিকদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

দুপুর ১টায় জোলাপাড়াস্থ আফতাবুন্নেছা মাল্টিমিডিয়া স্কুল চত্বরে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে বাবুর্চি ইউনিয়ন ও ডেকোরেটর শ্রমিকদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শাখা বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাধারণ সম্পাদক কমরেড এসএম নুরুজ্জামান জামান, সদস্য কমরেড গোলাম কিবরিয়া, বিপ্লব দাস টুংকু, মতিয়ার রহমান, আনিসুর রহমান, ক্ষেতমজুর সমিতির সাধারণ সম্পাদক আতিকুল ইসলাম প্রমুখ।

সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক কমরেড এসএম নুরুজ্জামান জামান বলেন, বিত্তবানদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যারা মুখরোচক খাদ্য তৈরি ও সাজসজ্জার কাজ করে থাকেন বৈশ্বিক করোনার মহামারীতে তারাই আজ খাদ্য অভাবে দিন পার করছেন। তাদের কথা ভেবেই বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) ‘অস্বচ্ছল জনগোষ্ঠী মাঝে অবিচল খাদ্য সহায়তা’ কর্মসূচির আওতায় এই প্রয়াস। তিনি আরো বলেন, সিপিবি’র এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

x