বন্যা মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

2
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। ছবি : ফোকাস বাংলা

দেশের বিভিন্ন এলাকায় নদ-নদীর পানি বাড়ছে। এ অবস্থায় বন্যা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে উল্লেখ করে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও দপ্তরগুলোকে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশনা দেন।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী নির্ধারিত এজেন্ডার বাইরে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বিষয়ে নির্দেশনা দেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব ড. খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরেন।

সচিব বলেন, বিভিন্ন নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ অবস্থায় বন্যা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আমরা যদি আগাম সতর্ক ও প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়ে রাখি তাহলে ক্ষয়ক্ষতি কম হবে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাছে তাদের গৃহীত পদক্ষেপগুলোর বিষয়ে জানতে চেয়েছেন। এ বিষয়ে সব ধরনের আগাম প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশও দেন প্রধানমন্ত্রী। প্রয়োজন হলে বন্যাকবলিত এলাকার স্কুল-কলেজগুলোতে আশ্রয়কেন্দ্র খোলার ব্যবস্থা রাখতে বলেছেন।

যেসব এলাকায় বন্যার পানি নামতে দেরি হয়, ওইসব এলাকায় বিশেষ ধরনের আমন ধানের বীজ লাগানোর জন্য কৃষিমন্ত্রীকে নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কোনো কোনো এলাকায় যদি ভাদ্র মাসে পানি বৃদ্ধি পায়, ওই সময় বঙ্গোপসাগরে জোয়ার থাকলে পানি নামতে দেরি হয়। সেক্ষেত্রে আমন চাষে যাতে কোনো অসুবিধা না হয় সেজন্য ‘টি-আমন জালা’ প্রস্তুত রাখতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনার পর কৃষিমন্ত্রী বৈঠকে জানান, চলমান বন্যায় আমন আবাদে কৃষি মন্ত্রণালয়ের যথাযথ প্রস্তুতি রয়েছে। আশা করি অসুবিধা হবে না। চলতি বছর ৬০ লাখ একর জমিতে আমন চাষের লক্ষমাত্রা থাকলেও ইতোমধ্যেই ৫৭ লাখ একর জমিতে আমন ধানের চারা রোপন সম্পন্ন হয়েছে।

x