বাংলাদেশ উন্মোচন করল রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা

এই ডিভাইসটিতে আছে অক্টা-কোরের মিডিয়াটেক হেলিও জি৩৫ এসওসি এবং ৫০০০ এমএএইচ এর সমৃদ্ধ ব্যাটারি

0 247

বিজ্ঞপ্তি: গ্লোবাল টেকনোলজি জায়ান্ট শাওমি বাংলাদেশের বাজারে তাদের সর্বোচ্চ বিক্রি হওয়া সিরিজ লাইন-আপের রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণটি উন্মোচনের ঘোষণা দিয়েছে। সবার জন্য উদ্ভাবন আনার শাওমির যে মিশন, তার সাথে সঙ্গতি রেখেই সাশ্রয়ী মূল্যের মধ্যে প্রিমিয়াম ফিচার নিয়ে এসেছে নতুন এ স্মার্টফোনটি

শাওমি বাংলাদেশের কান্ট্রি জেনারেল ম্যানেজার জিয়াউদ্দিন চৌধুরী বলেন, “রেডমি পণ্যে আমাদের লক্ষ্য সর্বশেষ স্মার্টফোন প্রযুক্তি উদ্ভাবন যুক্ত করা ও সেটি গ্রাহকদের জন্য নিয়ে আসা। রেডমি ফোনের জনপ্রিয়তাই এর প্রমাণ। অতীতের অনেক রেকর্ড ভাঙ্গার পরও রেডমি ৯ নিয়ে আমাদের লক্ষ্য বাজেট সেগমেন্টের জন্য আমাদের যে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি, তা আরোও ডেমোক্রেটাইজ করা। এই ফোনটি সুলভ মূল্যে প্রিমিয়াম ডিজাইনের সাথে সর্বোত্তম পারফরম্যান্স নিশ্চিত করে – যা গ্রাহকদের দিবে এক অনন্য অভিজ্ঞতা।”

ডিজাইন
রেডমি ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণে ফিচার হিসেবে থাকছে অঁরা আইকনিক ডিজাইন। এর ৬.৫৩ ইঞ্চির আইপিএস এইচডি প্লাস ডিসপ্লে দেবে অসাধারণ ভিউয়িং অভিজ্ঞতা। ডিসপ্লেতে থাকছে টিইউভি রাইনল্যান্ড ব্লু-লাইট সার্টিফিকেশন। ডিভাইসটিতে দেয়া হয়েছে স্পোর্টস টেক্সারড ডিজাইন। যা একে যেকোনো ধরনের ফিঙ্গারপ্রিন্ট থেকে সুরক্ষা দেবে। ডিভাইসটিতে হুট করেই কেউ যেন প্রবেশ করতে না পারে সে নিরাপত্তা দিতে দেয়া হয়েছে এআই ফেইস আনলক সুবিধা। পূর্বসূরিদের মতোই রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণটি সাপোর্ট করে ডুয়েল সিম কার্ড, সেই সঙ্গে আছে ডেডিকেটেড মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট এবং ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক।

ক্যামেরা
রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণে রয়েছে স্পোর্টস এআই ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ। যা যে কোনো পরিস্থিতিতে সুন্দর ও স্পষ্ট ছবি তুলতে পারবে। ডিভাইসটিতে প্রধান ক্যামেরা হিসেবে আছে ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। আছে একটি ২ মেগাপিক্সেলের ডেফথ সেন্সর ও এলইডি ফ্ল্যাশ। ফটোগ্রোফি ও সৃশজশীলতার বিকাশে ডিভাইসটিতে দেয়া হয়েছে ক্যালিডস্কোপ, ডকুমেন্টস স্ক্যানার ও প্লাম শাটার ফিচার। রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেলের এআই সেলফি ক্যামেরা।

পারফরম্যান্স
রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণটিতে পরফরম্যান্সের জন্য দেয়া হয়েছে মিডিয়াটেকের হেলিও জি৩৫ অক্টা-কোরের ২.৩ গিগাহার্জের গেইমিং চিপসেট। ডিভাইসটিতে ৫০০০ এমএএইচের উচ্চ ক্ষমতার ব্যাটারি দেয়া হয়েছে যা একই ক্যাটাগরির অন্য ফোনের চেয়ে ২৫ শতাংশ দীর্ঘস্থায়ী।

কোয়ালিটি
রেডমির অন্য ডিভাইসগুলোর মতোই রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণটিও উচ্চমানের। ডিভাইসটিতেও দেয়া হয়েছে পি২আই পানিনিরোধী ফিচার এবং যেকোনো ধরনের স্প্ল্যাশ থেকে রক্ষা করতে দেয়া হয়েছে কর্টিং প্রটেকশন। রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণটিতে আগে থেকেই একটি স্ক্রিন প্রটেক্টর দেয়া থাকছে।

কবে পাওয়া যাবে, দাম কত
রেডমি ৯ ডুয়েল ক্যামেরা সংস্করণটি দেশে তিনটি কালার ভ্যারিয়েন্ট স্পোর্টি অরেঞ্জ, কার্বন ব্ল্যাক ও স্কাই ব্লুতে পাওয়া যাবে। শীঘ্রই সারা দেশের অথোরাইজড মি স্টোর, পার্টনার স্টোর এবং রিটেইল চ্যানেলে পাওয়া যাবে।
ফোনটির ৪+৬৪ জিবি ভ্যারিয়েন্টের দাম ১২,৯৯৯ টাকা।

 

শাওমি সম্পর্কে
শাওমি কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ২০১০ সালের এপ্রিল মাসে এবং ২০১৮ সালের ৯ জুলাই (১৮১০.এইচকে) হংকং স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান বোর্ডে তালিকাভুক্ত হয়। শাওমি একটি ইন্টারনেট কোম্পানি যা আইওটি প্লাটফর্মের মাধ্যমে স্মার্টফোন ও স্মার্ট হার্ডওয়্যারের সঙ্গে সংযুক্ত। সবার জন্য প্রযুক্তির সমান অধিকার নিশ্চিতে শাওমি উদ্ভাবন ও মানে গুরুত্ব দেয়। সবসময় শাওমি তাদের গ্রাহকদের অভিজ্ঞতাকে মূল্যায়ন করে উচ্চমানের প্রযুক্তি আনার চেষ্টা করে। কোম্পানিটি সম্প্রতি বিশ্বের সেরা সব উদ্ভাবনী পণ্য এনেছে, যা ‘অনেস্ট প্রাইস’ বা সাশ্রয়ী মূল্যে জীবনকে আরও সহজ করে তোলে। বর্তমানে শাওমি বিশ্বে তৃতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ও বিশ্বের বৃহত্তম কনজ্যুমার আওটি প্লাটফর্ম প্রতিষ্ঠা করেছে। এই প্লাটফর্মে স্মার্টফোন ও ল্যাপটপ ছাড়াই ২৯৮.৫ মিলিয়নের বেশি
ডিভাইস সংযুক্ত রয়েছে। বর্তমানে বিশ্বের ৯০টিরও বেশি দেশ ও অঞ্চলে শাওমির পণ্যগুলো ব্যবহার
হচ্ছে।

২০২০ সালের আগস্টে কোম্পানিটি ফরচুন গ্লোবালের সেরা ৫০০ তালিকায় দ্বিতীয়বারের মতো স্থান করে নিয়েছে, সেই তালিকায় শাওমির অবস্থান ৪২২তম। যা গত বছরের তুলনায় ৪৬ ধাপ ওপরে। এ ছাড়া ইন্টারনেট সার্ভিস ও রিটেইলিং ক্যাটাগরিতে সপ্তম অবস্থানে আছে।

শাওমি হ্যাং সেন সূচক, হ্যাং সেন চীন এন্টারপ্রাইজ সূচক ও হ্যাং সেন টেক সূচকেও রয়েছে। শাওমি সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুনঃ http://blog.mi.com/en/

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x