বাবার জন্য বিশ্বকাপ বিসর্জন দিতে চান স্টোকস!

0 ২৮২

স্পোর্টস ডেস্ক : ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকসের বাবা অসুস্থ। সুস্থ বাবাকে ফিরে পেতে চার এ অলরাউন্ডার। এ জন্য ব্যক্তিগত সাফল্য বিসর্জন দিয়ে দিতেও রাজি তিনি।

ছেলের খেলা দেখতে দক্ষিণ আফ্রিকা গিয়েছিলেন স্টোকসের বাবা। বক্সিং ডে টেস্ট শুরুর দুই দিন আগে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সময় নষ্ট না করে তাকে ভর্তি করা হয় জোহানেসবার্গের একটি হাসপাতালে। প্রাথমিকভাবে তার অবস্থা বেশ গুরুতর ছিলো।

তবে হাসপাতালের চিকিৎসকদের নিবিড় পর্যবেক্ষণ ও যত্নের সুবাদে এখন সুস্থতার পথে বেন স্টোকসের বাবা। তবু সে সময়টাকে একদমই ভুলতে পারছেন না স্টোকস। প্রিয় বাবার অসুস্থতা তাকে এতোটাই শঙ্কিত করেছিল যে, ২০১৯ সালে নিজের সব সাফল্যের বিনিময়ে হলেও বাবার সুস্থতাই চাইছেন তিনি।

গত বছর ইংল্যান্ডকে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন তিনি। পরে অ্যাশেজ সিরিজের হেডিংলি টেস্টে খেলেছিলেন বীরত্বপূর্ণ এক ইনিংস। কিন্তু এসব তার কাছে কোনো মূল্য রাখে না। সবার আগে স্টোকসের চাই বাবার সুস্থতা।বেকিংনিউজ

ব্রিটেনের দৈনিক পত্রিকা মিররে নিজের কলামে স্টোকস লিখেছেন, ‘স্মরণীয় একটি বছর কাটানোর পরেও শেষদিকে এসে আমি এটিকে কীভাবে ব্যাখ্যা করবো বুঝতে পারছি না। কিছু অবিশ্বাস্য সাফল্য যেমন পেয়েছি তেমন অনেক ব্যর্থতাও দেখেছি। কিন্তু বাবাকে হাসপাতালে দেখা অন্য সবকিছুকে আলাদা করে দিয়েছে। কেউ যদি আমাকে বলে, ‘তোমার এ বছরের (২০১৯) সব সাফল্য নিয়ে যাবো, তবে তোমার বাবা সুস্থ থাকবে এবং তোমাকে খেলতে দেখবে’- তাহলে আমি বিনা বাক্য ব্যয়ে রাজী হয়ে যাবো।’

এ কলামেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরটিকে অভিশপ্ত হিসেবে উল্লেখ করেছেন স্টোকস। দলের ১১ জন সদস্য এবং কোচিং স্টাফের আরও ৬ জন এ সফরে গিয়ে অসুস্থ্য হয়েছেন। তাই দলীয়ভাবেই এটিকে অভিশপ্ত সফর বলা হচ্ছে বলে লিখেছেন স্টোকস। এ সফরে এখনও ৩টি করে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলতে হবে ইংল্যান্ডকে। যা শেষ হবে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি তারিখে।

তিনি লিখেছেন, ‘আমরা এটিকে অভিশপ্ত সফর বলছি। কারণ এ সফরে আসার আগে দলীয়ভাবে আমরা ভালো অবস্থানে ছিলাম না এবং গুছিয়ে নেয়ার যথেষ্ঠ সময়ও পাইনি। আমি এটাকে অজুহাত হিসেবে দাঁড় করাচ্ছি না। কিন্তু শারীরিক ও মানসিকভাবে এ সফরটা আমাদের জন্য কঠিন এক চ্যালেঞ্জই ছিলো।’

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.