বার্নসের সেঞ্চুরির পর সাউদির ছয় উইকেট

0 64

বৃষ্টির কারণে লর্ডস টেস্টের তৃতীয় দিন একটি বলও মাঠে গড়ায়নি। চতুর্থদিন ব্যাটিংয়ে নেমে হতাশা দেখিয়েছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যানেরা। টিম সাউদির দুর্দান্ত বোলিংয়ে একে একে সবাই ফিরেছেন সাজঘরে। স্রোতের বিপরীতে ছিলেন কেবল ররি বার্নস। উইকেটে থিতু হয়ে তুলে নিয়েছেন সেঞ্চুরি। তাঁর ইনিংসে ভর করে প্রথম ইনিংসে ২৭৫ রানে থামে ইংল্যান্ড।

গতকাল শনিবার চতুর্থদিন দিনের শেষভাগে লিড নিয়ে ব্যাট করতে নামা নিউজিল্যান্ড ২ উইকেটে ৬২ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে। ১০৩ রানের লিডসহ দিন শেষে ১৬৫ রানে এগিয়ে আছে কিউইরা। দিন শেষে নাইটওয়াচম্যান ওয়্যাগনারকে নিয়ে উইকেটে ছিলেন টম ল্যাথাম।

 

গতকাল দিনের শুরু থেকেই ব্যাটিংয়ে নড়বড়ে ছিল ইংল্যান্ড। শেষ বল পর্যন্ত দলকে একাই টেনেছেন বার্নস। ইনিংসের শুরু থেকে ব্যাট করে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন বার্নস। লম্বা সময় উইকেটে থেকে ১৩২ রান করেন তিনি। ২৯৭ বলে তাঁর ইনিংসটি সাজানো ছিল ১৬ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায়।

 

অন্যদিকে বল হাতে দারুণ  ছিলেন সাউদি। মাত্র ৪৩ রান দিয়ে ৬ উইকেট নেন তিনি। নিউজিল্যান্ডের হয়ে লর্ডসে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ডে ছাড়িয়ে যান নিজের কীর্তিকেই। এর আগে তাঁর সেরা ছিল ২০১৩ সালে। সেবার ৫০ রানে ৬ উইকেট নেন সাউদি।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউজিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ১২২.৪ ওভারে ৩৭৮

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস : ১০১.১ ওভারে ২৭৫ (আগের দিন ১১১/২) (বার্নস ১৩২, রুট ৪২, পোপ ২২, লরেন্স ০, ব্রেসি ০, রবিনসন ৪২, উড ০, ব্রড ১০, অ্যান্ডারসন ৮*; সাউদি ২৫.১-৮-৪৩-৬, জেমিসন ২৬-৮-৮৫-১, ডি গ্র্যান্ডহোম ১৫-৫-২৪-০, ওয়্যাগনার ২৪-৩-৮৩-০, স্যান্টনার ১০-৪-৩০-০, উইলিয়ামসন ১-০-২-০)

 

নিউজিল্যান্ড ২য় ইনিংস : ৩০ ওভারে ৬২/২ (ল্যাথাম ৩০*, কনওয়ে ২৩, উইলিয়ামসন ১, ওয়্যাগনার ১*; অ্যান্ডারসন ১১-৩-২২-০, ব্রড ৬-১-৯-০, রবিনসন ৯-৫-৭-২, উড ৪-০-১৭-০)।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x