বাড়ির বারান্দায় শুয়ে সারারাত কাঁদতেন মাইকেল

307
বিনোদন ডেস্ক : মাইকেল জোসেফ জ্যাকসন। বিশ্বে তাঁর পরিচিতি ছিলো মাইকেল জ্যাকসন বা এমজে নামে। ‘পপ কিং’ খ্যাত মাইকেল জ্যাকসনের টাকা আর খ্যাতি এই দুইয়ের কোনো অভাব ছিলো না। কিন্তু সুখের হয়তো অভাব ছিলো। আর তাইতো সারারাত অঝোর ধারায় কাঁদতেন তিনি।

মাইকেল মারা যাওয়ার পর তাকে নিয়ে নানা নতুন নতুন তথ্য ফাঁস করে তার বাড়ির গৃহপরিচালিকা, স্বজন ও বন্ধুরা। এই তথ্যগুলোর কোনোটি বিস্মিত করেছে, কোনোটি বিষাদে মন পুড়িয়েছে ভক্তদের।

মাইকেল ব্যক্তি জীবনে খুবই নিঃসঙ্গ ছিলেন। খুব বেশি মানুষের সঙ্গে মিশতেন না। কেউই পূর্বানুমতি ছাড়া তার বাড়িতে ঢুকতে পারত না। খুবই এলোমেলো জীবনযাপনে অভ্যস্ত ছিলেন তিনি। ঠিকমতো খেতেন না।

ঘুম তাকে ছেড়ে চলে গিয়েছিল। সারা রাত মাদকে আসক্ত থাকতেন। কড়া ঘুমের ওষুধেও তার ঘুম আসত না। যে কারণে ঘুমের ওষুধে আসক্ত হতে শুরু করেন। এই অসহনীয় জীবন আরও কষ্টকর ছিল শিশুদের যৌন নির্যাতনের অভিযোগে আদালতে প্রমাণ মেলার পর। রাতে না ঘুমিয়ে ঘর ছেড়ে বাড়ির বারান্দায় শুয়ে কাঁদতেন।

১৯৫৮ সালের ২৯ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা রাজ্যের গ্যারি নামে এক গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। জো জ্যাকসন ও ক্যাথেরিন জ্যাকসন দম্পতির সপ্তম সন্তান তিনি। ২০০৯ সালের ২৫ জুন ওষুধের বিষক্রিয়ায় প্রয়াত হন মাইকেল।

ব্রেকিংনিউজ/

x