বিশ্বরেকর্ডের পরেও সরকারি চাকরিতেই পাখির চোখ সমিতের

0 725

ranjyখেলাধুলা ডেস্ক : এই মরসুমে রঞ্জিতে রেকর্ডের ছড়াছড়ি৷এবার বিশ্বরেকর্ডই হয়ে গেল৷১১৭ বছরের রেকর্ড ভেঙে নয়া নজির গড়লেন গুজরাতের সমিত গোহেল৷কোয়ার্টার ফাইনালে ওড়িশার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৫৯ রানের ইনিংস খেলে অপারজিত থাকলেন গোহেল৷৭২৩ বলের সোনায় মোড়ানো ইনিংস সাজালেন ৪৫টি চার ও একটি ছক্কার সাহায্যে৷জয়পুরের সোয়াই মান সিং স্টেডিয়ামে এদিন সমিত ভাঙলেন ১৮৯৯-র ওভালে হওয়া রেকর্ড৷প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ওপেন করতে নেমে সারের ববি অ্যাবেলেরই ছিল সর্বোচ্চ ৩৫৭ রানের অপরাজিত ইনিংস৷প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে তিনি চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনশো করার ফাঁকেই গোটা ইনিংস ব্যাট করলেন৷

পার্থিব প্যাটেলের দলের ওপেনার জানতেন না রেকর্ডের কথা৷ম্যাচের পর তিনি বলছেন,‘‘ আমাদের কোচ বিজয় প্যাটেল ও পার্থিব প্যাটেল শুধু বলেছিল লম্বা ইনিংস খেলতে৷আমি সেটাই করার চেষ্টা করেছি৷এত বড় ইনিংস খেলে খুশি হয়েছি৷আমি বুঝতেও পারিনি বিশ্ব রেকর্ড করে ফেলেছি৷নিঃসন্দেহে এটাই আমার জীবনের সেরা দিন৷নিজের অনুভূতি প্রকাশের ভাষা নেই আমার কাছে৷’’ সমিত ক্রিকেটকে ভালেবাসলেও ভবিষ্যতের কথা ভেবে সরকারি চাকরিই খুঁজছেন৷সমিত তাঁর বাবা ভানুভাই প্যাটেলের কথা ভেবেই বলছেন,‘‘ আমার বাবার ছোট-খাটো জমি-বাড়ির দালালি আছে৷তেমন বড় কিছু নয়৷আমি শুধু ক্রিকেটেই মনোযোগ দিয়েছি৷কিন্তু চাই একটা সরকারি চাকরি৷আমি স্পোর্টস কোটায় আয়কর দফতরে চাকরির আবেদন জানিয়েছি৷পাশাপাশি দেনা ব্যাংকেও৷এখন দেখার কী হয়!’’ গোহেল বাবা-মা ও স্ত্রী’র সঙ্গেই থাকেন৷

Leave A Reply

Your email address will not be published.