বয়স নিয়ে দর কষাকষি, গণভবনে নেতারা

0 510

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম : ছাত্রলীগের নেতৃত্ব নির্বাচনে সমঝোতার চেষ্টাকালে বয়স নির্ধারণ নিয়ে দর কষাকষি চলছে দুই পক্ষের মধ্যে। সমাধানের জন্য ছাত্রলীগের বিদায়ী কমিটির দুই শীর্ষ নেতাকে নিয়ে গণভবনে গিয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।

এর আগে শুক্রবার (১১ মে) ছাত্রলীগের ২৯তম অধিবেশন উদ্ভোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এবং ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বয়স ২৭ বছর কিন্তু সম্মেলন ১০ মাস বিলম্ব হওয়ায় এক বছর গ্রেফ দিয়ে ২৮ করা হলো।

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণার পর রাতে গণভবনে গিয়ে তার সঙ্গে দেখা করেন ছাত্রলীগের নেতৃত্বে ছিলেন আওয়ামী লীগের এমন কয়েকজন নেতা। তারা প্রধানমন্ত্রীর কাছে বয়স আরও এক বছর বাড়ানোর দাবি করেন।

সভা শেষে একাধিক নেতা শেখ হাসিনাকে উদ্ধৃত করে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘বয়স ২৮ বছর ৩৬৪ দিন করা হয়েছে।’

এরপর ছাত্রলীগের সম্মেলন উপলক্ষে গঠিত নির্বাচন কমিশন শুক্রবার দিনগত রাত দেড়টার পরে শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী বয়স ২৮ বছর ধরে বৈধ প্রার্থীদের তালিকা ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট এবং প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরিফুর রহমান লিমনের ফেসবুক ওয়ালে প্রকাশ করে। ১৯৯০ সালের ১১ মের আগে যাদের বয়স তাদের প্রার্থীতা বাতিল করে তালিকাও প্রকাশ করে।

সূত্র জানায়, শনিবার সকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশর মিলনায়তনে ২য় অধিবেশন শুরু হলে লিমন আবারও ঘোষণা দেন, যাদের বয়স ১৯৯০ সালের ১১ মের পরে তাদের প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছে। কিন্তু একটি পক্ষ ২৮ বছর ৩৬৪ দিনের পক্ষে।

এরপর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা সম্মেলন স্থলে এসে বলেন, ‘যেহেতু কোনো সমঝোতা হচ্ছে না, তাই গণভবনে যাওয়া উচিত। এরপর তারা বিদাযী সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইনকে নিয়ে গণভবনের উদ্দেশে রওনা হন।

গণভবনে সমঝোতা শেষে সম্মেলনস্থলে এসে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে।

ব্রেকিংনিউজ/

Leave A Reply

Your email address will not be published.