ভোট পেছানোর আর সুযোগ নেই: সিদ্ধান্ত ইসির

0 209

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: জাতীয় ঐক্যফন্ট একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন একমাস পেছানোর দাবি জানালেও সব দিক বিবেচনা ও বিশ্লেষণ করে ‘ভোট পেছানোর আর কোনও সুযোগ নেই’ বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

এর আগে গতকাল বুধবার বিকেলে নির্বাচন পেছানোর দাবি নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে কমিশন ভবনে বৈঠক করেন ড. কামাল ও মির্জা ফখরুলের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতারা।

বৈঠক শেষে বিএনপি মহাসচিব ও ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের জানান, তাদের কথা ইসি মনযোগ দিয়ে শুনেছে এবং নির্বাচন পেছানোর আশ্বাসও দিয়েছে।

এর একদিন পর ইসি সচিব বলেন, ‘ঐক্যফন্টের তিন সপ্তাহ নির্বাচন পেছানোর দাবি চুলছেড়া বিশ্লেষণ করা হয়েছে। ৩০ ডিসেম্বরের পর নির্বাচন পেছানো ইসির কাছে যথেষ্ট যুক্তিযুক্ত এবং বাস্তবসম্মত না হওয়ায় নির্বাচন পেছানের আর কোনও সুযোগ নেই বলে ইসি সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

ইসি সচিব আজ সাংবাদিকদের আরও বলেন, ‘নির্বাচন আর পেছাবে না। আজ সকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) সভাপতিত্বে বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২ পর্যন্ত টানা এক ঘণ্টা বৈঠক করে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।’

হেলালুদ্দীন আহমদ আরও বলেন, ‘গতকাল ঐক্যফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ কমিশনে এসে বেশ কিছু দাবি উপস্থাপন করেছে। আজকে নির্বাচন কমিশন তাদের দাবিগুলো পর্যালোচনা করেছেন এবং নিজেদের ভেতরে বৈঠক করেছেন। বৈঠক করে উনারা এই সিদ্ধান্তে নিয়েছেন যে, জানুয়ারি মাসে বেশ কয়েকটি আইনি ও সাংবিধানিক বিষয় আছে। যেখানে হাতে যথেষ্ট সময় নিয়ে কাজগুলো করতে হবে। যেমন যদি পুননির্বাচন করতে হয়, উপনির্বাচন করতে হয়, নির্বাচনে অনিয়ম হলে তদন্ত করা, গেজেড প্রকাশ করা, নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথ গ্রহণ ইত্যাদি।’

তিনি বলেন, ‘এছাড়াও বিশ্ব ইজতেমা জানুয়ারির দ্বিতীয় এবং তৃতীয় সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রায় ৩০ থেকে ৪০ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসল্লি অংশ নিয়ে থাকেন এবং লক্ষাধিক আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকেন। সব দিক বিবেচনা করে ইসি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, নির্বাচন আর পেছানো হবে না।’

সচিব বলেন, ‘ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বিদেশি পর্যবেক্ষক নয়, আমরা এদেশের নাগরিক যে ১০ কোটি ৪১ লাখ ভোটার তাদের বিষয়গুলো আগে বিবেচনা করবো। তবে বিদেশি পর্যবেক্ষকদের সবসময় আমরা স্বাগত জানাই।’

সেনাবাহিনী মোতায়েন প্রসঙ্গে এক প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সকালে আমি বলেছিলাম ২ থেকে ১০ দিনের মধ্যে সেনাবাহিনী নামবে। আসলে আমি বিষয়টি বোঝাতে চাইছিলাম- সহকারী রির্টানিং কর্মকর্তারারা সেনাবাহিনীর জন্য ১০ দিন আগে থেকে তাদের জন্য বাসস্থানের ব্যবস্থা করবেন। তবে নির্বাচনে কবে কখন কীভাবে সেনা মোতায়েন করা হবে সে বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।’

প্রসঙ্গত, পুনঃনির্ধারিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ২৮ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন ২ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ ডিসেম্বর এবং ভোটের দিন ৩০ ডিসেম্বর।

বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম/

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x