মাননীয় মেয়র লিটনকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন

43

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য মনোনীত হওয়ায় ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে নগর ভবনে সিটি হল সভাকক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রাসিকের কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট শাখা।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনকে কমিউনিটি ডেভলপমেন্ট শাখার পক্ষে রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এ.বি.এম শরীফ উদ্দীন ফুলের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন। এরপর সিডিসি টাউন ফেডারেশন ও সিএইচডিএফ এবং লাল গোলাপ, শাপলা, কৃষ্ণচুড়া, চন্দ্রমল্লিকা, শিমুল, পদ্মা, মল্লিকা, বনলতা, আশার আলো, আলোর সন্ধানে ও নীলনদ ক্লাস্টারের পক্ষ থেকে পৃথক পৃথকভাবে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। যার গতিশীল নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় রাজশাহীতেও ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করা হচ্ছে।

প্রশস্ত সড়ক, ড্রেনসহ অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছি। বিসিক শিল্পনগরীর-২ স্থাপনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের কাজ চলছে। রাজশাহীতে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে ইতোমধ্যে শিক্ষামন্ত্রীকে ডিও প্রদান করা হয়েছে। আশা করছি আগামী তিন-চার বছরের মধ্যে রাজশাহী হবে আরো দৃষ্টিনন্দন, উন্নত, আধুনিক ও বাসযোগ্য নগরী। এ অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক অবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হবে।

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে রাসিক মেয়র বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মানননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে যে দায়িত্ব প্রদান করেছেন, তা যেন সঠিকভাবে পালন করতে পারি, মানুষের কল্যানে কাজ করে যেতে পারি, এজন্য সকলের কাছে দোয়া চাই।

তিনি আরো বলেন, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের চলমান একটি প্রকল্প প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের আপামর জনসাধারণের জীবনমান উন্নয়নে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন। সিটি কর্পোরেশন এলাকায় চলমান এ প্রকল্পটি সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করে কাজ করছে। রাস্তা, ড্রেন নির্মাণ, আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কাজ করছে সিডিসির সদস্যবৃন্দ।

এটিকে একটি ব্যাংকিং সিস্টেমে নিয়ে যেতে ইতোমধ্যে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ৫৮ হাজার পরিবারের উন্নয়নে কাজ করছে এ প্রকল্পটি। তিনি সঞ্চিত অর্থ দিয়ে নিজেদের উন্ন য়ন সহ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে। সিএইচডিএফ এর মাধ্যমে ৩১৭টি বাড়ী নির্মাণ করা হয়েছে।

রাসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. এ.বি.এম শরীফ উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন কমিউনিটি সংগঠনের উপদেষ্টা কবি আরিফুল হক কুমার, কমিউনিটি সংগঠনের নির্বাচন কমিশনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার প্রফেসর তানবিরুল আলম, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের সদস্য সচিব ও রাসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নূর ইসলাম তুষার, সিডিসি টাউন ফেডারেশনের সম্পাদক নাসরিন আক্তার আশা, সিএইচডিএফ সম্পাদক মিতু হালদার, ক্লাস্টারের সভাপতি সোহেলী আক্তার মিতা। স্বাগত বক্তব্য দেন রাসিকের প্রধান কমিউনিটি উন্নয়ন কর্মকর্তা আজিজুর রহমান।

x