রাজনীতির কারণেই রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র করা হচ্ছেঃ ফখরুল

0 577

%e0%a6%ae%e0%a6%bf%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%9c%e0%a6%be-%e0%a6%ab%e0%a6%96%e0%a6%b0%e0%a7%81%e0%a6%b2বিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম : শুধুমাত্র রাজনীতির কারণেই রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, শুধুমাত্র রাজনীতির কারণেই রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র করা হচ্ছে। এটা শুধুই ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য। জোর করে ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। সরকার গণতন্ত্র এবং উন্নয়নে বিশ্বাস করে না। ব্যাংকিং সেক্টর, শেয়ারবাজারসহ সকল গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করা হয়েছে। দেশের অর্থনীতি আজ ধ্বংসের পথে। উন্নয়নের নামে জনগণের সাথে প্রতারণা করা হচ্ছে।

তিনি শনিবার দুপুরে খুলনা মহানগরীর একটি অভিজাত হোটেলে ‘দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়ন ভাবনা ও সুন্দরবন’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ন্যাশনালিস্ট টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন (এনটিএ) এ সেমিনারের আয়োজন করে।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিদেশি প্রভুদের তুষ্ট করে শুধুমাত্র ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্যই সরকার রামপালে সুন্দরবন ধ্বংসকারী কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। দেশের মানুষ যতই বলছে, সুন্দরবনের কাছে পাওয়ার প্লান্ট করতে দেওয়া হবে না, ততই সরকার বলছে ওইখানেই বিদ্যুৎকেন্দ্র হবে। সুন্দরবন ধ্বংস হলে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যাবে।
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশ অত্যন্ত কঠিন সময় পার করছে। দেশ তার অস্তিত্ব নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছে। বর্তমান অনির্বাচিত সরকার দেশের ১৬ কোটি মানুষের প্রতিনিধিত্ব করছে না।

তিনি ইউনেস্কোর সাম্প্রতিক একটি রিপোর্ট উল্লেখ করে বলেন, ইউনেস্কোও চাচ্ছে না বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনের কাছে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র হোক। তাদের রিপোর্টে বলা হয়েছে, রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র হলে সুন্দরবন ধ্বংস হয়ে যাবে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ন্যাশনালিস্ট টিচার্স এ্যসোসিয়েশন (এনটিএ)’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শেখ মাহমুদুল হাসান। বক্তৃতা করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি নিতাই রায় চৌধূরী, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, আইইবি’র সাবেক সভাপতি আ ন হ আখতার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. মো. ওবায়েদুল ইসলাম, ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন চৌধূরী প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.