রাজশাহীর পুঠিয়ায় খালে বাঁধ দেওয়ায় ৫ গ্রামের মানুষ পানিবন্দি

0 87

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি: রাজশাহীর পুঠিয়ায় শিলমাড়িয়ায় পানি প্রবাহের খালে বাঁধ দিয়ে বেঁধে রাখায় ৫ টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়েছে পড়েছে। এতে বাড়ি ঘর, রাস্তা ঘাট সহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়েছে। পানি প্রবাহের খাল বাঁধ ভেঙ্গে পানি নিস্কাসনের ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী জানায়, রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের পমপাড়া ও মঙ্গলপাড়া গোড়াগাছী বিলে মাছ চাষের জন্য কৃত্রিম ভাবে বাঁধ নির্মান করে রেখেছেন এলাকার প্রভাবশালী মৎস্য চাষীরা। তার সাথে আরও রয়েছেন বাগমারার রামরামা গ্রামের মোহন ও স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা শরিফুল ইসলাম। দুই স্থানে অবৈধ ভাবে বাঁধ নির্মাণ করে মাছ চাষ করায় আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের শত শত পরিবারের মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে।

এতে ৫ টি গ্রামের রাস্তা ঘাট, বাড়ী ঘর এবং পানের বরজ সহ ফসলী জমিতে পানি জমে যাওয়ায় এলাকাবাসীকে চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ বিষয়ে বিভিন্ন মহলকে মৌখিক অভিযোগ দিয়েও কোন সুফল পাননি স্থানীয়রা। তাই তাদের দূর্ভোগ দেখার কেউ যেন নাই।

খালে বাঁধ দেওয়া মাছ চাষী মোহন জানান, আমি বাঁধ দিইনি। সেখানে যাদের পুকুর আছে তারা দিয়েছে। তবে আমারও সেখানে পুকুর আছে, আমিও তাদের সাথে আছি।

অপর আরেক জন বাঁধ দেওয়া মাছ চাষী ও শরিফুল ইসলাম জানান, আমার যেটা দেওয়া আছে সেটা বাঁধ না। তবে মুল পানি প্রবাহের জায়গায় মোহন বাঁধ দিয়ে রেখেছে। তবে সেই বাঁধ কেটে দেওয়া হলে আমাদেরও ব্যাপক ক্ষতি হবে।

শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুল জানান, যারা বাঁধ দিয়েছে তারা স্বাভাবিক পানি প্রবাহিত কে বাধা দিতে পারে না। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে একবার বাঁধ ভেঙ্গে দিয়েছি। তবে অনুমদন বিহীন পুকুর খননের কারণেই এই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। তারপরও আবার দিয়েছে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (চলতি দায়িত্ব) মোছাঃ রুমানা আফরোজ জানান, বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.