রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার নব-নির্বাচিত কমিটির মতবিনিময়

0 ৪০৪

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার নবা- নির্বাচত কার্যনির্বাহী কমিটির সাথে মতবিনিময় করেন জাতীয ক্রীড়া পরিষদের সচিব (অতিরিক্ত সচিব) মোঃ মাসুদ করিম। গত শনিবার সন্ধ্যায় মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসক ও রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি আব্দুল জলিল এর সভাপতিত্বে নব-নির্বাচিত কমিটির সদস্যগন মতবিনিময় সভায় অংশ নেন ।

 

নির্বাহী সদস্য ও প্রাক্তন ফুটবলার আলী আফতাব তপনসহ অন্যান্য সদস্যগন তাদের মতামত ব্যক্ত করেন। বক্তরা বলেন রাজশাহীতে কোন আন্তর্জাতিক মানের খেলা আয়োজনের সুযোগ দেয়া হয়না এমকি পুরাতন ফ্লাড লাইটের লাইটগুলিও খুলে নিয়ে গেছে যা আমাদের কাছে বেদনাদায়ক। রাজশাহীতে আন্তর্জাতিক খেলা আয়োজনের সুযোগ সুবিধা থাকলেও তা থেকে আমরা বঞ্চিত। তাই আমরা অন্তত্যপক্ষে একটি হলেও খেলা আয়োজনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য আপনার নিকট অনুরোধ জানাচ্ছি। অনন্তপক্ষেএকটি খেলা দিলেও আমাদের আয়ের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

 

এর আগে নব- নির্বাচিত সাধারন সম্পাদক মোঃ ওয়াহেদুন নবী অনু জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সংস্থার সংস্কার সক্রান্ত চাহিদা সচিবের হাতে তুলে দেন ও উপহার সরুপ সংস্থার মনোগ্রাম খচিত ক্রেস্ট প্রদান করেন। দাবী দাওয়া সংক্রান্ত বিষয়ে সচিব বলেন ঢাকায় থাকলেও রাজশাহীর অবস্থা আমার নক্ষদরপনে আছে। তার পরেই কিছু করার ইচ্ছা থাকলেও বাধ্যবাধকতার কারনে করা যায় না।

 

আপনারা জানেন জেলা ক্রীড়া সংস্থাগুলি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের আইডেন্টিটি । ফলে অগ্রধিকার ভিত্তিতে আপনাদের দাবীদাওয়াগুলির জন্য রাজশাহীতে প্রকৌশলী প্রেরণ করে দাখিলকৃত প্রতিবেদনের উপর নির্ভর করে জরুরী কাজগুলি মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের অনুমোদন  নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। আপনার জানেন বঙ্গবন্ধু ছিলেন একজন ফুটবলার তার মেয়ে বাংলাদেশ সরকারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ক্রীাড়া বান্ধব মানুষ ।

 

তিনি বাংলাদেশের খেলা হলেই পটোকলের চিন্তা না করে সরাসরি মাঠে চলে আসতেন খেলা দেখতে। এছাড়াও শেখ জামাল,শেখ কামাল খেলোয়াড় ও সংগঠক ছিলেন, তারা আবাহনী ক্রীড়া চক্র গঠন করেছিলেন যেন খেলাধুলায় নিয়মিত অংশ গ্রহন করা যায়।এক কথায় বলা যায় পুরো পরিবারটি ক্রীড়াবান্ধব। সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক ও রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি আব্দুল জলিল বলেন নব- নির্বাচিত সদস্যগন খেলোয়াড় মাইন্ডের তাদের দারা যে কোন খেলা আয়োজন ও পরিচালনা করা সম্ভব।

 

এখানে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন আছেন তিনিও একজন ক্রীড়াপ্রেমিক মানুষ। তার বাবা শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান ছিলেন রাজশাহী জেলা ক্রীড়া সংস্থার প্রতিষ্টাতা সাধারন সম্পাদক ও একজন ক্রীড়া প্রেমিক মানুষ। কাজেই এখানে যে কোন ধরনের খেলা আয়োজন করা সম্ভব।

 

এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব) মোঃ নজরুল ইসলাম, নব-নির্বাচিত কমিটি ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোঃ মাহফুজুল আলম লোটন, সহ-সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার, যুব লীগের সভাপতি ও সহ-সভাপতি মোঃ রমজান আলী,সহ-সভাপতি মোঃ মোস্তাক হোসেন,অতিরিক্ত সাধারন সম্পাদক মোঃ শামসুজ্জামান রতন, যুগ্ম-সম্পাদক নাজমীর আহমেদ আমান,রাসেল জামান,কোষাধ্যক্ষ মোঃ জিয়া হাসান আজাদ হিমেলসহ সকল সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.