রাজশাহী পাউবোর সেই নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তির দাবিতে ঠিাকাদারদের বিক্ষোভ

1

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পওর বিভাগ থেকে দুর্নীতির অভিযোগে বদলী হওয়া সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী কোহিনুর আলমের বিরুদ্ধে শাস্তিমুলক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছে রাজশাহী পাউবো ঠিাকাদাররা। দুর্নীতিবাজ ওই কর্মকর্তার অপকর্ম আড়াল করে তাকে বাঁচানোর চেষ্টাও চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ঠিকাদাররা। রবিবার বেলা ১০ টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী রাজশাহী পাউবোর সমানে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন ঠিকাদাররা। সমাবেশ থেকে তারা তৎকালীন নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

রাজশাহী পাউবো সম্মিলিত ঠিকাদার সমাজের ব্যানারে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সম্মিলিত ঠিকাদার সমাজের আহ্বায়ক খাজা তারেক।

এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী চেম্বারের সাবেক পরিচালক ও ব্যবসায়ী নেতা জামাত খান, পাউবো সম্মিলিত ঠিকাদার সমাজের যুগ্ম আহ্বায়ক মুঞ্জর মোর্শেদ, আসাদুল্লাহ জাহাঙ্গীর, প্রচার সম্পাদক নূর-এ আলম সিদ্দিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রহমান, গোলাম নবী, দফতর সম্পাদক কেএম জোয়ায়েদ, উপদেষ্টা আবু বক্কর সিদ্দিক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ঠিকাদার সমিতির উপদেষ্টা সাইফুল ইসলাম রাজু, ঠিকাদার সাজ্জাদ হোসেন ও বাবলুর রহমান প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পওর বিভাগের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী কোহিনুর আলম ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে দরপত্রে ব্যাপক অনিয়ম ও জালিয়াতির মাধ্যমে পছন্দের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে কাজ দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন। সে সময় বিষয়টি বুঝতে পেরে ঠিকাদার সমাজ প্রতিবাদ করেন। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী, সচিব ও পাউবোর মহাপরিচালক বরাবর স্মারকলিপিও দেওয়া হয়।

এ প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের শৃঙ্খলা বিভাগ থেকে পর্যায়ক্রমে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। দুটি তদন্ত প্রতিবেদনে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গেছে বলে প্রতিবেদন দাখিল করা হলেও অভিযুক্ত নির্বাহী প্রকৌশলী কোহিনুর আলমকে রক্ষায় দুই দফা তদন্ত প্রতিবেদন বাতিল করে তৃতীয় দফা কমিটি গঠন করা হয়। এ দফায় পাউবো তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমানকে প্রধান করা হয়।

তবে মাহফুজুর রহমান অনৈতিকভাবে প্রহসনের মাধ্যমে অধিনস্ত কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারিকে দায়ি করে অভিযুক্ত প্রকৌশলী কোহিনুর আলমকে অব্যহতির সুপারিশসহ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। ফলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের মান ক্ষুন্ন হয়েছে বলে অভিযোগ করেন ঠিকাদাররা।

তারা বলেন, অভিযুক্ত ঠিকাদারকে অভিযোগ থেকে বাচানোর জন্য মনগড়া প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। বক্তারা বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডে এমন দুর্নীতিবাজ ঠিকাদার থাকলে পাউবোর কাজের কোনো মান থাকবে না। পছন্দের ঠিকাদারদের মাধম্যে কাজ না করেই সরকারি অর্থ লুটপাটের স্বর্গরাজ্যে পরিনত হবে। তাই অবিলম্বে নতুন তদন্ত কমিটি গঠন করে সাবেক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান ঠিকাদাররা।

একইসঙ্গে তৃতীয় দফায় তদন্তের দায়িত্বে থাকা পাউবো তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মাহফুজুনের বিরুদ্ধে তদন্তের দাবি জানান। ঠিকাদাররা বলেন, এই মাহফুজুর রহমান কুড়িগ্রাম থাকাকালীন সেখানে ব্যাপক অনিয়ন করেছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত বছর অধিনস্ত কমচারিরা কোহিনুর আলমের অপসারণ দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শণ ও অপসারন দাবি করেন। সেসময় পাউবো রাজশাহীর পওর সার্কেলের তত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর কাছেও অভিযোগ করেছিলেন কর্মচারিরা।

ঠিকাদাররা বলেন, এর আগেও নির্বাহী প্রকৌশলী কোহিনুর আলমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্ষমতার দাপট নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে তার বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়। এ নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের তদন্তও করা হয়।

এছাড়া নানা অনিয়মের প্রেক্ষিতে তাকে গত বছর রাজশাহী থেকে বদলীর আদেশ হলেও পরে তদবির করে সে আদেশ ঠেকিয়ে রাজশাহীতেই থেকে যান। এরপর ফের দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়লে গত বছর সর্বশেষ তাকে রাজশাহীতে থেকে বদলী করা হয়। বর্তমানে তিনি পানি ভবনে কর্মরত রয়েছেন বলে জানা গেছে।

x