রাজশাাহীতে ‘বিশ্ব বসতি দিবস’ ২০২১ উদযাপন

১৪৩

রাজশাহী প্রতিনিধি: আজ বিশ্ব বসতি দিবস। দিনটি উদযাপনের লক্ষ্যে বেলা এগারো টায় রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনারের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় দিবসটির প্রতিপাদ্য, গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে বিশদ আলোচনা করা হয়। বিশ্ব বসতি দিবসে এরারের প্রতিপাদ্য ÔAC Urban action for a Carbon-free world’.

১৯৮৫ খ্রিস্টাব্দে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দ থেকে প্রতি বছর দিবসটি উদযাপিত হচ্ছে। রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (আরডিএ)-এর আয়োজনে অনুষ্ঠিত সভায় বিভাগীয় কমিশনার ড. মো: হুমায়ুন কবীর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, সরকার কোভিড-১৯ এবং বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে কাজ করছে। কার্বন জলবায়ু পরিবর্তনের একটি অন্যতম প্রধান কারণ। আমরা কার্বনের মাত্রা সীমিত রেখে সবার জন্য বসতি নিশ্চিত করতে চাই। কার্বনমুক্ত বাসযোগ্য পৃথিবী আগামীর প্রয়োজন।

তিনি বলেন, একটি কার্বনমুক্ত বিশে^র জন্য শহরে কার্যক্রম আরও ত্বরান্বিত করা দরকার। মানুষের মাঝে যতটা প্রয়োজন ততটা সচেতনতা তৈরি হয় নাই। যেখানে কার্বন বেশি সেখানেই সচেতনতা বেশি দরকার। দেশের জন্য জলবায়ু পরিবর্তনে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে। ইমারত নিমার্ণসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে পরিবেশগত বিষয়াদি বিশেষভাবে খেয়াল করতে হবে।

তিনি বলেন, সরকার ইমারত বিধিমালা আইন প্রণয়ন করেছে, তাই ইমারত নির্মাণ করার পূর্বেই সরকার প্রণীত বিধিমালা মেনে চলতে হবে। সমাজকে পরিবেশ বান্ধব করে গড়ে তুলতে হবে। পরিবেশকে সমুন্নত রাখা সকলের দায়িত্ব। প্রয়োজনে আমাদেরকে বেশি করে গাছ লাগাতে হবে।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, সব দিক থেকে রাজশাহী শহর ভালো অবস্থানে আছে। বলা যায়, রাজশাহী পরিবেশ বান্ধব শহর। তিনি বলেন, নগরীতে দিন দিন জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেজন্য নাগরিক সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করতে হবে। যানজট নিরসন করতে হবে। রাস্তা-ঘাটের আরো উন্নয়ন করতে হবে। শহর ও গ্রামের মানুষের মাঝে এখন যেটুকু বৈষম্য রয়েছে তা দূর করতে হবে।

তাহলে, এই নগরীর পরিবেশ আরোও উন্নত হবে। সেইসাথে আশ-পাশের জেলা-উপজেলাওলো থেকে এখানে আসার প্রবণতাও কিছুটা কমবে বলে তিনি মত দেন। তিনি বলেন, মানুষ নিজ অবস্থানে থেকেই প্রয়োজনীয় উপাদান কাছে পেলে তাদের দূরে যাবার প্রয়োজনীয়তা ফুরোবে।

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে দিবসটির গুরুত্ব সম্পর্কে সর্বসাধারণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি জন্য প্রচারণা চালাতে হবে। জলবায়ু পরিবর্তন টেকসই উন্নয়ন বিরাট হুমকি।

রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত সচিব) মো: আনওয়ার হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল ভার্চ্যুয়ালি যুক্ত হন। সভায় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো: সুজায়েত ইসলাম, ডিআইজি প্রতিনিধি মো: আব্দুস সালাম, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো: খালেকুজ্জামান চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Comments are closed.