রাবিতে দুইদিন ব্যাপী উদ্ভিদবিজ্ঞান সম্মেলন শুরু

১৪৫
রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ ও বাংলাদেশ উদ্ভিদবিজ্ঞান সমিতির যৌথ উদ্যোগে দুুই দিনব্যাপী বার্ষিক উদ্ভিদবিজ্ঞান সম্মেলন-২০২১ শুরু হয়েছে। চলবে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। 
বুধবার(৩০মার্চ) বিকেল সাড়ে তিনটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের  শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবনে এই সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া।
অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য  অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার এবং পৃষ্ঠপোষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক  চৌধুরী মো. জাকারিয়া ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক  মো.সুলতান-উল-ইসলাম।
বাংলাদেশ উদ্ভিদবিজ্ঞান সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মো. আবুল বাসারের সভাপতিত্বে এই সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. আবু কালাম সিদ্দিক।
অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন অধ্যাপক রাখহরি সরকার এবং স্বাগত বক্তব্য উপস্থাপনসহ বিদেশি অতিথিদের পরিচয় করিয়ে দেন সম্মেলন সাংগঠনিক কমিটির সচিব অধ্যাপক মোহাম্মদ শহিদুল আলম। আয়োজক প্রতিষ্ঠানের পরিচিতি উপস্থাপন করেন প্রফেসর সাবরিনা নাজ, বাংলাদেশ উদ্ভিদবিজ্ঞান সমিতির পরিচিতি উপস্থাপন করেন প্রফেসর আশফাক আহমদ ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন রাবি উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর মো. মনজুর হোসেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে লোকমান হোসেন মিয়া বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ ও বাংলাদেশ উদ্ভিদবিজ্ঞান সমিতি বাংলাদেশে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণার প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। উদ্ভিদবিজ্ঞানের গবেষণা ও উন্নয়নের সাথে জড়িয়ে আছে দেশের খাদ্য নিরাপত্তাসহ সার্বিক উন্নয়ন। বৈশ্বিক জলবায়ুগত পরিবর্তনের কারনে আমাদের পরিবেশ ও প্রতিবেশগত অনাকাঙ্খিত পরিবর্তন ঘটেছে। উদ্ভিদবিজ্ঞানীগণ তাদের গবেষণার মাধ্যমে কৃষিক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অবদান রেখে চলেছে। তাদের গবেষণার ফলেই বাংলাদেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। আগামীতেও এই ধারা অক্ষুন্ন থাকবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
উপাচার্য গোলাম সাব্বির সাত্তার তাঁর বক্তব্যে বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে এই সম্মেলন তাৎপর্যপূর্ণ ও সময়োপযোগী। টেকসই উন্নয়নের জন্য উদ্ভিদবিজ্ঞানে গবেষণা ক্রমে বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে নতুন কৃষি প্রযুক্তি উদ্ভাবন, কৃষি জমির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিতকরণ ও খাদ্য নিরাপত্তা বিধানে উদ্ভিদবিজ্ঞানীদের মৌলিক গবেষণার কোনো বিকল্প নেই বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি আরো বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন কৃতবিদ্য শিক্ষক মাঠ পর্যায়ে টিস্যু কালচারের মাধ্যমে আলু বীজ উৎপাদন করেছেন এবং তার কারনেই স্টোবেরি চাষে অভূতপূর্ণ সাফল্য অর্জিত হয়েছে। সম্মেলনে উপস্থাপিত প্রবন্ধগুলি থেকে আগামী দিনের জন্য উদ্ভিদবিজ্ঞান গবেষণার এক পথরেখা পাওয়া যাবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রফেসর ফারজানা আশরাফি নীলা।
ইনোভেটিভ রিসার্স ইন প্ল্যান্ট সায়েন্স ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইন বাংলাদেশ শীর্ষক প্রতিপাদ্য নিয়ে দুই দিনব্যাপী এই সম্মেলনে একটি প্লিনারি সেশন, একটি বিশেষ সেশনসহ চারটি টেকনিক্যাল সেশনে শতাধিক প্রবন্ধ উপস্থাপিত হবে। এছাড়া সম্মেলনে একটি পোস্টার সেশনও রয়েছে। সম্মেলনে দেশ-বিদেশের প্রায় দুইশত উদ্ভিদবিজ্ঞানী, শিক্ষক ও গবেষক অংশ নিচ্ছেন।

Comments are closed.