শহীদ শাহজাহান সিরাজের স্মৃতিস্তম্ভে জাসদের শ্রদ্ধা নিবেদন

৯৫

মো: পাভেল ইসলাম, স্টাফ রিপোর্টার:  আজ ২২শে ডিসেম্বর ছাত্র-শ্রমিক সংহতি দিবস,রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৮৪’সালে স্বৈরাচার বিরোধী ছাত্র-শ্রমিক আন্দোলনের শহীদ,রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জাসদ ছাত্রলীগের তৎকালীন বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান সিরাজের ৩৮তম আত্মবলিদানের দিবস।

এই বিশেষ বেদনাভারাক্রান্ত দিবসটি উপলক্ষ্যে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় স্টেশন চত্বরে রাজশাহী মহানগর জাসদ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে শহীদ বেদীতে পুস্পার্ঘ্য অর্পন শেষে ১ মিনিট নিরবতা পালন করে শহীদ শাহজাহান সিরাজের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

এর পুর্বে শাহজাহান সিরাজের স্মরণে একটি মিছিল বিশ্ববিদ্যালয় রেলস্টেশন বাজার প্রদক্ষিন করে একটি পথসভায় মিলিত হয়। পথসভায় শহীদ শাহজাহান সিরাজের সংগ্রামী আত্মবলিদানের স্মরণে বক্তব্য রাখেন স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের সাবেক ছাত্রনেতা ও রাজশাহী মহানগর জাসদের সভাপতি আবদুল্লাহ আল মাসুদ শিবলী,সাধারণ সম্পাদক আমিরুল কবির বাবু,রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা,জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির তথ্য গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক জুলফিকার মান্নান জামী,

মহানগর সহ সভাপতি আশরাফুল ওমর দুলাল,সাবেক ছাত্রনেতা,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইফুল করিম কাজল,দপ্তর সম্পাদক গাজী আলমগীর কবির, কোষাধ্যক্ষ আশরাফুল আলম সিদ্দিক,যুবজোট মহানগরের সাধারণ সম্পাদক সুমন চৌধুরী,মহানগর জাসদের জনসংযোগ বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ জোহেব হোসেন রনি,মতিহার থানা জাসদের সভাপতি তসলিম উদ্দিন,মহানগর সহ সম্পাদক মোঃ পাভেল ইসলাম মিমুল,ফয়সাল রহমান রানা,বাংলাদেশ ছাএলীগ জাসদ রাজশাহী মহানগর সভাপতি শাহরিয়ার রহমান হিমেল প্রমুখ।

জাসদের কর্মসুচির পাশাপাশি,৮০’র দশকের সাবেক ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের উদ্যোগে, সাবেক ছাত্রনেতা ও রাজশাহী কলেজ ছাএ সংসদের সাবেক ভিপি রাসিকের ১ নং প্যানেল মেয়র মোঃ শরিফুল ইসলাম বাবু,রাজশাহী কলেজ ছাএ সংসদের সাবেক জি এস আব্দুল্লাহ আল মাসুদ শিবলী,মেরাজুল আলম,আরিফুল ইসলাম,অধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অনন্য সাবেক ছাএনেতৃবৃন্দ।

এসময় নেতৃবৃন্দ দাবী করে বলেন যে,শহীদ শাহজাহান সিরাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে সবচাইতে উল্লেখযোগ্য একজন শহীদ ছাত্রনেতা। সুতরাং তাঁর স্মৃতিস্তম্ভটি যেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ছাত্রছাত্রী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীর দাবী আদায়ের আন্দলনের অনুপ্রেরণার প্লাটফরম হিসেবে গড়ে উঠে। সেভাবেই পরিকল্পনা করে সেটি গড়ে তুলতে হবে। সেই সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ে নির্মিতব্য একটি গুরুত্বপুর্ণ ভবন তাঁর নামে নামকরণ করতে হবে।

Comments are closed.