শিল্পীরা কেউ টাকা চায় না, চায় কাজ জায়েদ

0 319

বিনোদন অনলাইন ডেস্ক : গত ৫ মে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচিত কমিটির এক বছর পূর্ণ হয়েছে। নির্বাচনের মাধ্যমে শিল্পী সমিতির সভাপতি নির্বাচিত হন মিশা সওদাগর। চিত্রনায়ক ও বাংলাদেশ শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হন জায়েদ খান। বিগত ১ বছরের প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসেব ও চলচ্চিত্রের বিভিন্ন প্রসঙ্গে কথা বলেছেন সাংবাদিকদের সাথে।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ১ বছরের অগ্রগতি নিয়ে জায়েদ খান বলেন, অবশ্যই খুব ভালো অগ্রগতি হয়েছে। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিকে নতুন করে ভেঙে সাজিয়েছি আমরা। সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। তারা চলচ্চিত্রকে ভালোবেসে কাজ করেছেন। শিল্পী সমিতির বসার জায়গা আগে ঠিক ছিল না। এখন এফডিসির সবচেয়ে সুন্দর জায়গা শিল্পী সমিতি কার্যালয়।

জায়েদ খান দাবি করে বলেন, আমরা ২১টি ইশতেহার দিয়েছিলাম। এক বছরের মধ্যে ২০টি পূর্ণ করেছি। আমরা একটু মাথা গোঁজার ঠাঁই নিশ্চিত করতে অসচ্ছল শিল্পীদের জন্য বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে চেয়েছিলাম। এটা বাকি আছে। এর কাজও শুরু হবে শিগগিরই।

এদিকে হল সঙ্কট নিরসনের কার্যক্রম প্রসঙ্গে জায়েদ বলেন, হলের এখন মূল কাজ মেশিন বসানো। কারণ অনেক হল এখনো অনেকটা জিম্মি মেশিনের জন্য। এটি নিয়ে আমরা কাজ করছি। সরকারের সাথে কথা হয়েছে। আশা করি সহযোগিতা পাবো। আমাদের চলচ্চিত্রের বিভিন্ন দিকে উন্নতি হলেও এখনো হলগুলো আগের মতো রয়ে গেছে।

সবশেষে জায়েদ খান বলেন, আমি লিখে দিতে পারি, সবশিল্পী কাজ পাবে। সরকার যদি আন্তরিক হয়। শিল্পীরা বসে থাকবে না। শিল্পীরা কেউ টাকা চায় না, সবাই চায় কাজ। আমরা প্রযোজক সমিতির সাথে আলোচনা করেছি। এখন সরকার আন্তরিক হলে সবই সম্ভব হবে। আমরাও চেষ্টা করছি- এসব সফল হলে, আমাদের দাবি অনুযায়ী কাজ হলে সবাই কাজ পাবে।

ব্রেকিংনিউজ/

Leave A Reply

Your email address will not be published.