শেরপুরে ছোনকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে প্রিজাইডিংসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা

0 18

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি: বগুড়ার শেরপুরে ছোনকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সদ্য ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচন কেন্দ্র করে তফশীল ভোটার তালিকা প্রণয়ন, প্রকাশ ও প্রকাশের বিরুদ্ধে আপত্তি, চুড়ান্ত তালিকা প্রকাশ না করে গত ১৮ নভেম্বর সোমবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনী এলাকায় ত্রাস সৃষ্টির মাধ্যমে জাল ভোট প্রদান, ব্যালট পেপারে দুই রকম সিল, গণনাকালে প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দেয়। প্রিজাইডিং অফিসারের অসংগতিপূর্ণ ফলাফল সীট, নানা অনিয়ম, স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা। এদিকে নির্বাচনের ৩ কার্য দিবসেই বিজ্ঞ আদালতের আদেশ তোয়াক্কা না করে তড়িঘড়ি করে সভাপতি নির্বাচনও সম্পন্ন করেন নির্বাচন কাজে সংশ্লিষ্টরা।
মামলা সূত্রে জানা যায়, শেরপুরের ঐতিহ্যবাহি ছোনকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন সংক্রান্ত তফশীস অনুযায়ী গত ১৮নভেম্বর সোমবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শেখ মো. নজমুল ইসলাম প্রিজাইডিং অফিসার ও সদস্য সচিব এএসএম রশিদুল হাসান ভোট গ্রহনের দায়িত্বে থাকাকালীন নিজেরা যোগসাজষ করে তাদের মনোনীত প্রার্থীদের জয়ের জন্য ভোটযুদ্ধক্ষেত্র তৈরি করেন। ঘোষিত তফশীল অনুযায়ী ভোটার তালিকা প্রনয়ন, প্রকাশ ও চুড়ান্ত তালিকা প্রকাশ না করেই এ নির্বাচন কাজ সম্পন্ন করে। নির্বাচন অনুষ্ঠানকালে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে ত্রাস সৃষ্টি করে প্রভাব খাটিয়ে ব্যালট বাহিরে নিয়ে গিয়ে জাল ভোট দিয়ে গোপন কক্ষে রক্ষিত ব্যালট বাক্স ভরান। এমনকি একই ধরনের ব্যালটে দু-রকম(চিহ্ন) ব্যবহার করা হয়। ফলাফল প্রকাশকালে ভূক্তভোগী প্রার্থী হেলাল উদ্দিন ও রেনুকা বেওয়াসহ অন্যান্য পরাজিত প্রার্থীর এজেন্টদের নির্বাচন কক্ষ থেকে বের করে দেয়। তাছাড়া নির্বাচিত প্রার্থীদের ক্ষেত্রে জাল সীলের সংখ্যা বেশি থাকায় ওইসব প্রার্থীরা নির্বাচিত হয় বলে অভিযোগে জানা গেছে। শুধু তাই নয় অভিভাবক সদস্য পদে নির্বাচন শেষ হতে না হতেই কোন প্রকার প্রজ্ঞাপন জারী না করেই ৩ কার্য দিবসের মধ্যেই তড়িঘড়ি করে গত ২১ নভেম্বর দুপুরে সভাপতি পদে নির্বাচন সম্পন্ন করে রেজুলেশন তৈরি করে প্রিজাইডিং অফিসার ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। এদিকে বির্তকিত নির্বাচন, অসংগতিপূর্ণ ফলাফল প্রকাশ, কারচুপি, জালভোট প্রদানসহ নানা অনিয়ম- দুর্নীতি-স্বজনপ্রীতি প্রতিমান হয়। এতে ওই নির্বাচনের ফলাফল পূনঃ গণনা, নির্বাচন বাতিলসহ নির্বাচিত প্রার্থী সম্বলিত ম্যানেজিং কমিটির সকল কার্যক্রম বন্ধের অভিযোগ তুলে প্রিজাইডিং অফিসার( উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা), সদস্য সচিব(প্রধান শিক্ষক)সহ ১০জনকে বিবাদী করে বগুড়ার শেরপুর থানার সহকারি জজ আদালতে ১৫৮/২০১৯ অন্য মামলা দায়ের করেন পরাজিত প্রার্থী হেলাল উদ্দিন ও রেনুকা বেওয়া। এ মামলার প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত ছোনকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন কাজে জড়িত প্রিজাইডিং অফিসার, প্রধান শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারী করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.