শেরপুরে ভ্রাম্যমান গ্যাস ফিলিং স্টেশনে ভ্রাম্যমান আদালত

133
dav

শেরপুর(বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার শেরপুরে রনবীরবালা ঘাটপাড় এলাকায় অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ভ্রাম্যমান গ্যাস ফিলিং স্টেশনে গত রোববার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে থ্রী হুইলারে গ্যাস ভরানো ও অতিরিক্ত টাকা নেয়ার ঘটনায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করাসহ ওই স্টেশনটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
জানা যায়, উপজেলার গাড়িদহ ইউনিয়নের রনবীরবালা গ্রামের প্রভাবশালী আলহাজ¦ ফিরোজ আলীর জায়গা একই এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের ছেলে এমদাদুল হক ভাড়া নিয়ে মেসার্স ফাহিম ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল নামে ভ্রাম্যমান সিবিজি গ্যাস স্টেশন স্থাপন করে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধ ভাবে ব্যবসা করে আসছে। কৌশলী এমদাদুল হক ট্রাকের উপরে বিশেষ কায়দায় গ্যাস সিলিন্ডার বসিয়ে থ্রী হুইলারে গ্যাস দিয়ে সুযোগ বুঝে ওই গ্যাস পাম্প থেকে বর্তমান বাজার মুল্যের চেয়েও প্রতি ঘনলিটার গ্যাসে ৮ টাকা করে বেশি নিচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বহী কর্মকর্তা মো. লিয়াকত আলী সেখ গত রোববার বিকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে ভ্রম্যমান আদালত বসিয়ে গ্যাস পাম্প মালিকের ৫০ হাজার টাকা জরিমান আদায় ও বৈধ কাগজ পত্র না থাকায় ওই গ্যাস স্টেশন বন্ধ রাখার নির্দেশ প্রদান করেন। এদিকে অনুমোদনহীন ভাবে বিশেষ কায়দায় ট্রাকের ভিতর গ্যাস সিলিন্ডার স্থাপন করে এ অঞ্চলে গ্যাস সরবারাহ করার কারনে জনমনে আতংক বিরাজ করছে। একটি বড় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ভ্রাম্যমান গ্যাস ফিলিং স্টেশনটি সরিয়ে নেওয়ার জোর দাবি জানিয়েছেন সচেতন এলাকাবাসী।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বহী কর্মকর্তা মো. লিয়াকত আলী সেখ বলেন, বৈধ কাগজপত্র না থাকা এবং প্রতি ঘনলিটার গ্যাসে অতিরিক্ত টাকা নেয়ায় ২০১০ সালের বাংলাদেশ গ্যাস আইনের আওতায় জরিমানা করা হয়েছে। এ ধরনের অবৈধ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

x