সন্তানের অস্বাভাবিক আচারণের কারণ জানুন

0 131

স্বাস্থ্য ডেস্ক: শিশুদের অমনোযোগিতা একটি দীর্ঘমেয়াদি মানসিক ব্যাধি। সমাজে অনেক মা-বাবা শিশুর আচরণ নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যান। তাদের অভিযোগ-আমার ছেলে অশান্ত দুরন্ত স্বভাব, অরাজক, অনাসৃষ্টি, উচ্ছৃঙ্খল, এলোমেলো, বিভ্রান্ত, অগোছাল, দিশেহারা, তালগোল পাকানো, বিক্ষিপ্ত চিত্ত, দিবাস্বপ্ন এবং দীর্ঘ সময় মনোযোগ না থাকায় ভুলে যাওয়া, বুদ্ধিদীপ্ততা লোপ পাওয়া ইত্যাদি।

এই রোগে আক্রান্ত শিশুরা বয়সকালে দীর্ঘমেয়াদি রোগ বা মানসিক বিকলতায় রূপান্তরিত হয়।

রোগের কারণ

১) জেনেটিক কারণ ৭৬ শতাংশ জিন জিন ইন্টারঅ্যাকশন।
২) গর্ভকালীন মায়েদের ধূমপান ও অস্থিরতা, বিশৃঙ্খল জীবনযাপন।
৩) মা ডায়াবেটিক রোগী ও অধিক ওজন বা স্থূল স্বাস্থ্যের অধিকারী।
৪) কম ওজনের শিশুর জন্মগ্রহণ।
৫) অকালে জন্মগ্রহণ।
৬) পরিবেশ দূষণ (সিসা, আর্সেনিক, সালফার)।

রোগ নির্ণয়

১) স্কুলে লেখাপড়ায় অমনোযোগী।
২) অসর্তকতা ভুল।
৩) ত্রুটিপূর্ণ কাজ।
৪) খেলাধুলায় আগ্রহহীনতা।
৫) স্কুলে/বাড়িতে/কর্মক্ষেত্রে বিফলতা।
৬) বিনা অনুমতিতে অন্যের জিনিস সরানো বা নাড়াচাড়া করা।
৭) প্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহৃত বস্তু হারিয়ে ফেলা। যেমন, বই, খাতা, পেনসিল-কলম, চাবি, চশমা, মোবাইল ফোন ইত্যাদি।
৮) ভুলে যাওয়া। প্রতিদিনের কাজকর্ম সময়মতো না করা।
৯) চেয়ারে বসে বারবার হাত-পা নাড়ানো, অস্থিরতা।
১০) শ্রেণিকক্ষে বসে তার নির্দিষ্ট স্থান পরিবর্তন করা।
১১) ছোটাছুটি-দৌড়াদৌড়ি। গাছ বা পিলারে বেয়ে ওঠা।
১২) অতিরিক্ত কথা বলা।
১৩) শৃঙ্খলাবদ্ধ লাইনে দাঁড়িয়ে না থাকতে পারা এবং লাইন ভঙ্গ করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা।
১৪) অস্থিরতা।
১৫) অন্যের কথা বলার মধ্যে কথা বলা।
১৬) প্রশ্ন শোনার আগে বা শেষ হওয়ার আগেই উত্তর দেয়া ইত্যাদি।

চিকিৎসা

সন্তানের এমন আচারণ ধরা পরলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যাওয়া জরুরি। প্রাথমিক পর্যায়েই চিকিৎসকদের পরামর্শে সন্তান সুস্থ হয়ে উঠবে। সূত্র: ব্রেকিংনিউজ/

Leave A Reply

Your email address will not be published.