‘সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসলে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে ওরা’

0 88

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: দিনের আলোতে বিভিন্ন পেশায় নিয়োজিত থাকলেও সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসার সাথে সাথে ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে তারা। প্রথমে নিজ নিজ এলাকায় টার্গেট নির্ধারণ করে। এরপর টার্গেট অনুযায়ী ডাকাতির কাজ সম্পন্ন করে।

মঙ্গলবার (২৭ আগস্ট) দিবাগত রাত আনুমানিক দেড়টার সময় একটি দল রাজধানীর আশুলিয়া থানার আশুলিয়া বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে এমন ডাকাত দলের সদস্যদের গ্রেফতার করে র‍্যাব।

গ্রেফতার ডাকাতদলের সদস্যরা হলেন- আমজাদ হোসেন, মো. বাবুল হোসেন, মো. উজ্জল মিয়া ও মো. আজমল।

বুধবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবা সম্মেলন করে এসব তথ্য জানান র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্ণেল সারওয়ার-বিন-কাশেম।

তিনি বলেন, রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় কুখ্যাত ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্যরা ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। তারা নিজ নিজ এলাকায় টার্গেট নির্ধারণ করার পর পরিকল্পিতভাবে ডাকাতির ছক আঁকে। এভাবেই ডাকাতদলের সদস্যরা গত ১২ আগস্ট পশু ব্যবসায়ীরা রাজধানীতে গরু বিক্রি করে বাড়ি ফেরার পথে ডাকাতির শিকার হয়। ডাকাতিকালে ডাকাত দলের সদস্যদের মারপিটের কারণে পশু ব্যবসায়ী মো. কলিম উদ্দিন ফকির নিহত হয়।

ওই ঘটনায় নিহত কলিম উদ্দিনের বোনের স্বামী মোহাম্মদ আলী শেখ বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনায় র‍্যাব তদন্ত শুরু করে।

ডাকাত দলের সদস্য আটক আমজাদ হোসেন র‍্যাবের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানায়, গাজীপুর একটি বেসরকারি কোম্পানিতে ড্রাইভার হিসেবে কর্মরত ছিল সে। এর পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি ছিনতাইসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধ করে আসছে। আমজাদ আগে ডাকাত দলের সাথে দশ-বারোটি বেশি ডাকাতির কাজে অংশগ্রহণ করে।

ডাকাতির ঘটনায় নিহত কলিমুদ্দিনের বোনের স্বামী বকুল আলী শেখ জানান, মেরুল বাড্ডা হাট থেকে তারা নাটোরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়। এ সময় একটি ট্রাক নাটোর-রাজশাহী বলে তাদেরকে ডাকতে থাকে। ২০০ টাকা ভাড়ার বিনিময়ে তারা ট্রাকে ওঠেন। ট্রাকে ওঠার পর আরও যাত্রী দেখতে পান, ওই যাত্রীরা নিজেদেরকে নাটোরের বাসিন্দা বলে পরিচয় দেয়। কিছুক্ষণ পর তারা ট্রাকের মধ্যে ঘুমিয়ে পড়েন। এক সময় তাদের উপর ডাকাতদলের সদস্যরা আক্রমণ করতে থাকে এবং অনেকের হাত পা রশি দিয়ে বেঁধে ফেলে। এরপর তাদের কাছ থেকে পশু বিক্রি করা ১২ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়।

এক পর্যায়ে ডাকাতদলের সদস্যরা পশু ব্যবসায়ীদেরকে ট্রাক থেকে ছুঁড়ে ছুঁড়ে রাস্তার পাশে ফেলে দেয়। তাদের আঘাতে গুরুতর আহত অবস্থায় কলিমুদ্দিনকে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x