সাংবাদিকে হুমকি, হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র বরখাস্ত

0 64

বিশ্বখ্যাত ম্যাগাজিন পলিটিকোর এক নারী সাংবাদিককে হুমকি দেওয়ায় হোয়াইট হাউজের এক মুখপাত্রকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে প্রশ্ন করায় নারী সাংবাদিককে ‘ধ্বংস’ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন হোয়াইট হাউজের মুখপাত্র টি জে ডকলো। এ কারণে তাকে সাতদিনের জন্য বিনা বেতনে বরখাস্ত করা হয়েছে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের উপ প্রেস সচিব টি জে ডকলো সম্প্রতি পলিটিকোর রিপোর্টার তারা পামেরিকে হুমকি দেন। পামেরি আরেক সাংবাদিকের সঙ্গে ডকলোর গোপন সম্পর্কের গুঞ্জন নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করছিলেন। পামেরিকে হুমকি দেওয়ার ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

শুক্রবার হোয়াইট হাউজের প্রেসসচিব জেন সাকি জানান, ওই ঘটনার পর ডকলো সাংবাদিক পামেরির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। শুক্রবার এক টুইটে সাকি লেখেন, ডকলো নিজেই প্রথমে স্বীকার করেছেন যে, তিনি প্রেসিডেন্টের বেঁধে দেওয়া আচরণবিধি অনুসরণ করতে পারেননি।

ক্ষমতা নেয়ার প্রথম দিনই প্রেসিডেন্ট বাইডেন দৃঢ়ভাবে তার কর্মীদের সতর্ক করে দিয়ে বলেছিলেন, হোয়াইট হাউজের কোনো কর্মী যদি সহকর্মীর সঙ্গে অসম্মানজনক আচরণ করেন তবে তা কিছুতেই বরদাশত করা হবে না।

বাইডেন আরও বলেছিলেন, ‘এ বিষয়ে আমি একদমই মজা করছি না। আপনি যদি আমার সঙ্গেও কাজ করেন এবং আমি শুনতে পাই, আপনি অন্য সহকর্মীর সঙ্গে অসম্মানজনক আচরণ করেছেন, তবে অন্য কারো সঙ্গে কথা বলুন। কারণ, আমি তখনই আপনাকে চাকরিচ্যুত করব। আমি কোনো যদি, এবং, কিন্তু শুনবো না।”

জেন সাকি টুইটে জানান, অসদাচরণ করায় ডকলোর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

ডকলোকে সাময়িক বরখাস্ত করার হলেও অনেকে তাতে সন্তুষ্ট হতে পারেননি। তাদের মতে, প্রেসিডেন্ট বাইডেন এক্ষেত্রে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে ব্যর্থ হয়েছেন।

জেন সাকি জানান, এক সপ্তাহের জন্য বিনা বেতনে বরখাস্ত করা ছাড়াও কাজে ফেরার পর ডকলো আর কখনও পলিটিকোর রিপোর্টারদের সঙ্গে কাজ করতে পারবেন না।

ডকলোর সঙ্গে এক্সিওস এর সাংবাদিক আলেক্সি ম্যাককমান্ডের সম্পর্কের গুঞ্জন নিয়ে কাজ করছেন পামেরি। এ ঘটনায় পামেরিকে হুমকি দেন ডকলো। ভ্যানিটি ফেয়ার ম্যাগাজিনে ডকলো কাণ্ড নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পামেরিকে ফোন করে ডকলো বলেছেন, ‘আমি আপনাকে ধ্বংস করে দেব। ’

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x