সাপাহারে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি করায় যুবক আটক

0 114
সাপাহার( নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর  সাপাহারে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কে নিয়ে কটূক্তি কারী পলাতক আসামি মেহেদী মাসুদ (২৭) কে আটক করছে থানা পুলিশ।

আটককৃত মেহেদী মাসুদ উপজেলার আশড়ন্দ কাটনি পাড়ার মৃত আব্দুর রশিদের  ছেলে ও ে আশড়ন্দ বাজারে কম্পিটার দোকনদার বলে জানা গেছে।
গত ১২ মে পাতাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি ও জালশুকা গ্রামের সেতাবুর রহমানের ছেলে সাইদুর রহমান  দলীয় সাংগঠনিক মিটিং করছিলেন দলীয় কার্যালয়ে। মিটিং শেষে ১২:৩২মিনিটে  তার নিজ ফেইসবুক  আইডি তে দুটি ছবি আপলোড করে সেই আইডি মেহেদী মাছুদ তার ব্যবহৃত  গবযবফর গবযবফর  আইডি থেকে দুপুর ২:১৯ মিনিটে” রাষ্ট্রীয় মূর্তি পুজার দল” মূর্তিপুজা আর মূজিব পূজার মৌলিক পার্থক্য নেই “উভয়টি শিরক,দুটিকেই বয়কোট করুন, ঈমান বাচাঁন, বলে বাজে কমেন্টস করে মেহেদী মাসুদ।

সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই এর নির্দেশে এসআই নয়ন কর এর  নের্তৃত্বে ডিজিটাল আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে পলাতক আসামির  প্রতিদিনেরর লোকেশন ট্র্যকিং করে নিবিড় তৎপরতার মাধ্যমে  সঙ্গী ফোর্স নিয়ে ৬ জুন  রাত আনুমানিক ৯ টার দিকে সাপাহার বাজার থেকে সেই  কটূক্তি কারি পলাতক আসামি কে গ্রেফতার  করা হয়।

উল্লেখ্য যে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান শ্রদ্ধার ছবি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও ভারতের  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নমস্কারে ২ টি ছবি যুক্ত করে কটূক্তিমুলক কমেন্টস করে যা স্বাধীনতা ও দেশ বিরোধী সামিল, এমন কমেন্টস জাতির পিতা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কে ,অসম্মানজনক, মানহানিকর,রাষ্ট্রের মান ক্ষুন্নকরা, ধর্মীয় অনুভূতে আঘাত, জনসাধারণের মধ্যে অস্থিরতা ও  বিশৃংখলা সৃষ্টির কারনে থানায় উপস্থিত হয়ে  ডিজিটাল নিরাপত্তা ও দেশের প্রচলিত  আইনে মামলা দায়ের করেন ছাত্রলীগ নেতা সাইদুর রহমান ও ছাত্রলীগ নেতা মোফাচ্ছের হোসেন সাদ্দাম । এ ঘটনায় মাসুদ প্রায় ২৪ দিন পলাতক থাকার পর থানা পুলিশের হাতে আটক হয় ।

এ বিষয়ে কথাহলে ওসি আব্দুল হাই জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিয়ে কটূক্তি কারী পলাতক আসামি  মেহেদী মাসুদ আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ইতি মধ্যে থানায় একটি মামলাও হয়েছে।  প্রচলিত নিয়মে আসামি রোববারে জেলা আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x