সিংড়ায় ইউপি সদস্য ও তার ভাইকে কুপিয়ে হত্যা আহত ১

0 588

34667রাকিবুল ইসলাম, সিংড়া-নাটোর : নাটোরের সিংড়ায় সাবেক ইউপি সদস্য মোজাফ্ফর হোসেন মোজাই (৪২) ও তার বড় ভাই হাচেন আলীকে (৫৫)কে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে উপজেলার দুর্গম এলাকা ডাহিয়া ইউনিয়নের বড়গাঁ তে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। এসময় নিহতের অপর সহোদর মহসিন আলী (৩৫) গুরুতর জখম হয়। হতাহতরা বড়গাঁয়ের মৃত আব্দুস সোবাহানের ছেলে। মোজাফ্ফর হোসেন মোজাই স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ও ইউনিয়ন পরিষদের ৬নং ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য ছিলেন। শুক্রবার সকালে প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। ইতিমধ্যে নাটোর জেলার পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার মুখার্জী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে আটক করতে পারে নি পুলিশ।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে ৮-১০ জনের একদল দূর্বৃত্ত মোজাফ্ফরের দরজায় কড়া নাড়ে। মোজাফ্ফর ঘর থেকে বের হওয়ামাত্র তারা ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। মোজাফ্ফরের চিৎকারে তার অপর দুই ভাই হাচেন ও মহসিন বের হলে দূর্বৃত্তরা তাদের ওপরও হামলা চালায়। এসময় বড় ভাই হাচেনের ডান পা কর্তন ও ছোট ভাই মহসিনের হাত ও মাথা মারাত্মক জখম করে। দুর্বৃত্তরা তাদেরকে জখম করে মোজাফ্ফরকে পার্শ্ববর্তি বাড়ির উঠানে নিয়ে গলাকেটে মৃত্যু নিশ্চিত করে। এসময় স্থানীয়রা এগিয়ে আসতে থাকলে দুর্বৃত্তরা ২-৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করতে করতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা হাচেন ও মহসিন কে উদ্ধার করে রাজশাহী হাসপাতালে নেওয়ার পথে হাচেন মারা যায় এবং মহসিনকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এলাকাবাসীর ধারনা, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বর্তমান ইউপি সদস্য ওয়ার্ড আওয়ালীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ইউনুস আলীর সাথে সাবেক ইউপি সদস্য মোজাফ্ফর হোসেন মোজাই এর বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে এই হত্যাকান্ড হতে পারে।
সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন মন্ডল দু’ভাইয়ের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নাটোর জেলার পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার মুখার্জী সহ ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করা হয়েছে। নিহত সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোজাফ্ফর হোসেন মোজাই এর বিরুদ্ধে থানায় ডাকাতি,হত্যাসহ অন্তত ১০টি মামলা রয়েছে। তবে এই হত্যার সাথে কারা জড়িত তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.