সীতাকুন্ডে বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহত ফায়ার ফাইটার কর্মী শফিউলের উল্লাপায় বাড়িতে শোকের মাতম

১৫৯

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সীতাকুন্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার ফায়ার সার্ভিস কর্মী শফিউল ইসলাম (২২) এর মৃত্যুর সংবাদে পরিবার সহ এলাকা জুড়ে শোকের মাতম চলছে । নিহত শফিউল ইসলাম সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের নাগরৌহা গ্রামের আবদুল মান্নান ও সাহানাজ পারভীনের প্রথম এর ছেলে। সে গত দুই বছর ধরে কুমিরা ফায়ার স্টেশনে ফায়ার ফাইটার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, সীতাকুন্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় কুমিরা ফায়ার স্টেশন কর্মীদের সঙ্গে শফিউল ইসলামও উদ্ধার অভিযানে অংশ নেন। আগুনের ভয়াভবতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি ইউনিট উদ্ধার অভিযানে অংশ নেয়। এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৯ জনে দাড়িয়েছে । এদের মধ্যে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার শফিউল ও রয়েছে । তার মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর এলাকা জুড়ে চলছে শোকের মাতম ।

পরিবারের বুক ফাটা আর্তনাদে এলাকার আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে । পারিবারের একমাত্র কর্মক্ষম ছেলে হারিয়ে দিশেহার হয়ে পরেছে পরিবারটি । প্রায় দুই বছর আগে চাকরি পাওয়ায় পরিবারটিতে এসেছিল সচ্ছলতা । সোমবার নিতহত শফিউলের বাড়িতে এলাকাবাসী এসে শোকসন্তপ্ত পরিবারকে শান্তনা দেয়ার চেষ্টা করছে । কিন্তু কোনভাবেই নব বিবাহিত শফিউলে স্ত্রী আঁখিকে শান্ত করা যাচ্ছে না ।

পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আখি খাতুন (১৮) বার বার সে বিলাপ করছে ও জ্ঞান হারাচ্ছে । জ্ঞান ফিরলে সে বলছে ‘এই সময় যদি শফিউলের মৃত্যুতে আমরা নিঃস্ব হয়ে গেলা এখন আমাদের কি হবে । এ বিষয়ে শফিউল ইসলামের বাবা আবদুল মান্নানের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলে জানা যায়, তাঁর ছেলের লাশের জন্য তিনি বর্তমানে ফায়ার সার্ভিসের ঢাকা হেড কোয়ার্টার অফিসে অবস্থান করছেন। সোমবার ছেলের লাশ নিয়ে গ্রামে ফিরবেন বলে জানা যায় ।

Comments are closed.