সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত তানোের পৌরসভা 

২০৪
তানোর প্রতিনিধি: সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে রাজশাহীর তানোর  পৌরসভা। বাংলাদেশ জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ড এর অর্থায়নে (বিসিসিটি) জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় সৌর বিদ্যুতায়িত সড়ক বাতি স্থাপন শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় তানোর পৌরসভায় ১২৪টি সৌর বিদ্যুতাচালিত সড়ক বাতিস্থাপন করা হয়েছে। দৃষ্টিনন্দন এসব সোলার সিস্টেম সড়ক বাতিগুলো শোভা পাচ্ছে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের গুরুত্বপূর্ন সড়ক ও বাজারের মোড়ে মোড়ে।
সন্ধ্যায় হওয়ার সাথে সাথে বাতিগুলো স্বয়ংক্রিয় ভাবে জ্বলছে আবার সকালের আলোতে স্বয়ংক্রিয় ভাবে নিভে যাচ্ছে। রাতের বেলায় বিদ্যুত চলে গেলেও এসব সৌর সিস্টেমের সড়ক বাতিগুলো জ্বলছে সার্বক্ষনিক। বিদ্যুতের উপর চাপ কমাতে প্রকল্পটি পৌরবাসীর কাছে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। পৌরবাসী সৌর বিদ্যুতের মাধ্যমে অনেক সুফল পাচ্ছে।
তানোর পৌরসভা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ড এর অর্থায়নে (বিসিসিটি) প্রায় ২ কোটি টাকা ব্যয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলায় সৌর বিদ্যুতায়িত সড়ক বাতি স্থাপন শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে ১২৪টি সড়ক বাতি স্থাপনের কাজ সম্পন্ন হয়েছে।
তানোের পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কুঠিপাড়া গ্রামের  বাসিন্দা ও ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান ও একই গ্রামের  যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বিগত দিনে সড়ক গুলোতে আলোর ব্যবস্থা না থাকায় চলাচল করতে অনেক অসুবিধা হতো। বর্তমানে পৌরসভা থেকে সৌর বিদ্যুতায়িত সড়ক বাতি স্থাপনের পর আমরা নিরাপদে চলাচল করতে পারছি। এখন এলাকার বাজার ও সড়কগুলো রাতের বেলায় সার্বক্ষনিক আলোকিত থাকে।
তানোর পৌরসভার মেয়র মেয়র৷ ইমরুল হক বলেন,  প্রতি বছর পৌরসভার সড়ক বাতির জন্য প্রায় হাজার হাজার টাকা বিদ্যুত বিল পরিশোধ করতে হতো। সৌর বিদ্যুতায়িত সড়ক স্থাপনের পর পৌর রাজস্ব থেকে বিদ্যুত বিল প্রদানে সাশ্রয় হচ্ছে।
তাছাড়া পরিবেশ বান্ধব, সাশ্রয়ী ও নিরাপদ সৌর বিদ্যুতের সড়ক বাতি পৌরসভার বিভিন্ন জনগুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করায় পৌরবাসী তাদের সম্পদের নিরাপত্তার পাশাপাশি চলাচলে সুবিধা পাচ্ছে। সৌর বিদ্যুতায়িত সড়ক বাতি স্থাপন শীর্ষক প্রকল্পটি বর্তমান সরকারের একটি যুগান্তকারী প্রকল্প। এতে মানুষের পাশাপাশি পরিবেশও উপকৃত হচ্ছে।

Comments are closed.