১৪ ঘণ্টা পর মিললো কাঙ্খিত সেই টিকিট

0 248

বিডি সংবাদ টুয়েন্টিফোর ডটকম :  গতকাল সন্ধ্যায় স্টেশনে আসি। প্রায় ১৪ ঘণ্টা অপেক্ষার পর সেই কাঙ্খিত টিকিট পেলাম। টিকিট হাতে পেয়ে সব কষ্ট ভুলে এখন অনেক ভালো লাগছে। আশা করছি পরিবার-পরিজনের সাথে এবার ঈদ করতে পারব।’

বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) সকাল ৯টার দিকে রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে ১৮ আগস্টের আগাম টিকেট হাতে পেয়ে উচ্ছ্বাসিত কণ্ঠে এসব কথা বলছিলেন বেসরকারি চাকরিজীবী আবুল কালাম আজাদ।

চট্টগ্রামগামী মহানগর প্রভাতীর টিকিট হাতে পেয়ে তিনি জানান, গতকাল সন্ধ্যায় এসে টিকিটের লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। তিনি যখন এসে লাইনে দাঁড়িয়েছেন তখনও তার সামনে আরও ২৩ জন। এরপর নির্ঘুম সারারাত কাউন্টারের সামনে বসেই কেটেছে। সারারাত ক্লান্তির পর আজ সকালে টিকেট হাতে পেয়ে সব কষ্ট ভুলে গেছি। এখন স্ত্রী-সন্তানসহ গ্রামের বাড়ি যেতে পারব নির্বিঘ্নে।

শুধু আবুল কালাম আজাদই নয় কমলাপুরে স্টেশনে এমন অসংখ্য মানুষই সারারাত বসে, উপস্থিত অন্যদের সঙ্গে খোশ গল্প করে সময় কাটিয়েছেন। লাইনের সিরিয়ালও ঠিক রাখতে সারারাত ছিলেন সজাগ। সন্ধ্যার পর থেকে রাত যত বেড়েছে কমলাপুর স্টেশনে কাউন্টারের সামনে মানুষের সিরিয়াল ততো বেড়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে ২য় দিনের মতো ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে কমলাপুরে। আজ দেয়া হচ্ছে ১৮ আগস্টের টিকিট। ২৬টি কাউন্টার থেকে এই টিকিট দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে ২টি কাউন্টার নারীদের জন্য সংরক্ষিত আছে। প্রতিটি কাউন্টারের সামনে মানুষের দীর্ঘ লাইন। এই লাইনে কেউ দাঁড়িয়েছেন গতকাল সন্ধ্যায়-রাতে, কেউবা আজ ভোরে এসে যুক্ত হয়েছেন। সকাল ৮টায় টিকিট বিক্রি শুরু হওয়ার সময় এ লাইন দীর্ঘ হয়ে একে বেকে প্লাটফর্মের বাহিরের রাস্তায় চলে গেছে।

রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের জন্য লাইনে দাঁড়ানো ছিলেন আহসান হাবিব শাওন, তিনি লাইনে দাঁড়িয়েছেন গত রাত ৯টার দিকে। এখনও দাঁড়িয়ে আছেন টিকিটের লাইনে তার সামনে তখনও ১৭ জন টিকিট প্রত্যাশী মানুষ।

তিনি বলেন, এসি টিকিটের জন্য এত কষ্ট করে দীর্ঘ লাইনে গত রাত থেকে দাঁড়ানো আছি। যদিও শুনা যাচ্ছে ইতিমধ্যে এসি টিকিট শেষ। কাউন্টার থেকে যারা টিকিট দিচ্ছেন তাদের খুব ধীরগতি। দীর্ঘ সময়ে লাইনে অপেক্ষার পর তাদের এমন ধীরগতিতে মানুষ বিরক্ত হয়ে যাচ্ছে।

এদিকে ট্রেনে অগ্রিম টিকিট বিক্রির সার্বিক বিষয় নিয়ে কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ‘সকাল ৮টা থেকে ২৬টি কাউন্টারে আগামী ১৮ আগস্টের টিকিট বিক্রি হয়েছে। মানুষ সুশৃঙ্খলভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করছেন। তবে সকাল থেকেই টিকিট প্রত্যাশী মানুষের উপচে পড়া ভিড়। যদিও আমাদের সম্পদ সীমিত, এরমধ্যেই আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। ট্রেনর অগ্রিম টিকিট বিক্রিতে যেন কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে লক্ষ্যে আইনশৃংখলা বাহিনীসহ রেলওয়ের নিজস্ব বাহিনী তৎপর রয়েছেন।’

প্রতিবারের মতো এবারও ১০দিন আগে থেকে শুরু হয়েছে ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি। ১০ আগস্ট বিক্রি হবে ১৯ আগস্টের টিকিট। এভাবে আগামী ১১ ও ১২ আগস্ট পর্যায়ক্রমে টিকিট মিলবে ২০ এবং ২১ আগস্টের টিকিট। এই দিনগুলোতে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় সকাল ৮টা থেকে টিকিট বিক্রি হবে। কমলাপুর স্টেশনে ২৬টি কাউন্টার খোলা রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ২ টি কাউন্টার মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত আছে।

জানা গেছে, বরাবরের মত এবারও মোট টিকিটের ৬৫ শতাংশ দেয়া হচ্ছে কাউন্টার থেকে। বাকি ৩৫ শতাংশের ২৫ শতাংশ অনলাইন ও মোবাইলে। ৫ শতাংশ ভিআইপি ছাড়াও রেল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বরাদ্দ রয়েছে ৫ শতাংশ।

এদিকে  সুষ্ঠু ও নিরাপদে ট্রেন চলাচলের সুবিধার্থে ট্রেন পরিচালনায় সাথে সম্পৃক্ত রেলওয়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সকল প্রকার ছুটি বাতিল করা হবে। ২১,২২ আগস্ট মৈত্রী এক্সপ্রেস এবং ২৩ আগস্টে বন্ধন এক্সপ্রেস চলাচল করবে না। একজন যাত্রীকে একসঙ্গে সর্বোচচ ৪ টি টিকিট দেয়া হবে এবং বিক্রিত টিকিট ফেরত নেয়া হবে না। এদিকে পবিত্র ঈদুল আজহার ৫ দিন আগে ১৮ আগস্ট থেকে ঈদের আগেরদিন পর্যন্ত সব আন্তঃনগর ট্রেন সাপ্তাহিক বন্ধের দিনও চলাচল করবে।

ব্রেকিংনিউজ/

Leave A Reply

Your email address will not be published.