আজ মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস

0 79

৫২’র ভাষা আন্দোলনে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার অভিমুখে হাজারো মানুষের ঢল নেমেছে। রাত ১২টা ১ মিনিট থেকেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আসতে থাকেন মানুষ। তবে ভোরের আলো পূর্ব দিগন্তে উঁকি মারার সঙ্গে সঙ্গে মানুষজন ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ছুটে আসেন।

বেলা গড়াতেই বাড়তে থাকে মানুষের ঢল। তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ হলের অদূরে পলাশীর মোড়ে জড়ো হন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তল্লাশি শেষে তারা সারিবদ্ধভাবে ভেতরে প্রবেশ করেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে এ বছর মানুষের উপস্থিতি ছিল তুলনামূলক কম।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মানুষের ভিড় ক্রমেই বাড়তে থাকে। এ সময় মহামারি করোনাকালীন ঝুঁকি এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার যে নির্দেশনা স্বাস্থ্যবিশেষজ্ঞরা দিয়েছেন তা মানার বালাই দেখা যায়নি। মাইকে বার বার মাস্ক ছাড়া কেউ ভেতরে প্রবেশ করবেন না বলা হলেও অনেককেই মাস্ক ছাড়া জটলা পাকিয়ে শহীদ মিনার অভিমুখে ছুটে যেতে দেখা যায়।

এক সময় একুশের প্রভাত ফেরিতে খালি পায়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য আসতে দেখা গেলেও এখন আর তেমনটি খুব একটা দেখা যায় না। সরেজমিন দেখা গেছে, বলতে গেলে প্রায় সবাই জুতা পায়েই হেঁটে যাচ্ছেন। তারা শহীদ মিনারের মূল বেদিতে ওঠার আগে জুতা হাতে করে যাচ্ছেন।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কারা কারা শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন তা জানাতে পলাশীর মোড়ের অদূরে ইলেকট্রনিক ডিসপ্লে বোর্ড স্থাপন করা হয়েছে। ডিসপ্লে বোর্ডে কখন কারা পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করেছেন তা দেখানো হচ্ছে।

শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে সঙ্গে ব্যাগ নিয়ে যারা এসেছেন তারা বিপাকে পড়েন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কোনোভাবেই ব্যাগ নিয়ে ভেতরে প্রবেশ করতে না দেয়ায় অনেকেই আশেপাশের দোকানপাটে ব্যাগ জমা রেখে যান। বেলা যত গড়াতে থাকে মানুষের ঢল তত বাড়তে থাকে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x