আটঘরিয়ার শিক্ষক দম্পত্তির মেয়ে তমা মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় চান্স পেয়েছে

0 ১৩৯

আটঘরিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি: পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার শিক্ষক দম্পত্তির মেয়ে তমা মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ, হবিগঞ্জে চান্স পেয়েছে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায়   শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ, হবিগঞ্জে মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার পারখিদিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালযের সাবেক মেধাবী ছাত্রী ও একই বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মোছাঃ রেহানা পারভীন এবং সারুটিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মোঃ আনোয়ার হোসেন শিক্ষক দম্পত্তির মেয়ে মনিকা আফরিন তমা।

 মনিকা আফরিন তমা ঐ উপজেলার সড়াবাড়িয়া গ্রামের মেয়ে। বাবা মাসহ পরিবারের সবার মুখ উজ্জ্বল করেছে সে। ছোটবেলা থেকে তমার মেডিকেলে পড়ার স্বপ্ন এখন বাস্তবে রূপ নিয়েছে। নিজের চেষ্টা,  বাবা মা আর শিক্ষকদের অনুপ্রেরণায় অদম্য মেধাবী এ শিক্ষার্থী নিজেকে নিয়ে গেছেন এক অনন্য উচ্চতায়। কোনো বাধাই দমিয়ে রাখতে পারেনি প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে বেড়ে উঠা তমার শিক্ষাজীবনের পথ চলাকে।

তার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আফতাব হোসেন জানান, সে পরিবারের বড় মেয়ে, তার ছোট জমজ বোন তিন্নি ও ১ ভাই ৮ম শ্রেণিতে পড়ছে। ছোটবেলা থেকেই সে অদম্য মেধাবী ছিলেন। পঞ্চম শ্রেণিতে জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। এরপর পারখিদিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। তমা শিক্ষাজীবনে বৃত্তিসহ বিভিন্ন মেধা নির্বাচনি পরীক্ষায় কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জন করে এবং জীবনে কোন পরীক্ষায় প্রথম ছাড়া সে দ্বিতীয় হয়নি।তার জমজমছোট বোন সেও প্রচন্ড মেবাধী। খুব অল্প নাম্বারের ব্যবধানে সেও মেডিকেলে চান্স পায়নি। সোমবার স্কুলের এসেম্বিল করার সময় তমা তার প্রিয় স্কুলে উপস্থিত হলে প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কিছু বলার সুযোগ করে দেন।

তমা মেডিকেলে চান্স পাওয়ায় প্রথমেই মহান আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করে। তার স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হওয়ার। সকলের নিকট সে দোয়া চায় এবং ভবিষ্যতে একজন আদর্শ ডাক্তার হওয়ার জন্য। মেয়ের সাফল্যে আনন্দে কেঁদে ফেলেন তমার মা শিক্ষক রেহানা পরভীন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.