আহ্, অল্পে রক্ষা কপাল গুণে

0 271

খেলাধুলা অনলাইন ডেস্ক : রিয়াল বস জিনেদিন জিদানের পর এবার ভাগ্যের সহায়তাটা টের পেলেন অলরেডসদের গুরু ইয়ুর্গেন ক্লপও। কথাটা এজন্যই বলা, এবারের উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রিয়াল মাদ্রিদ ও লিভারপুল দুটি দলই কপালের জোরে ফাইনালে উঠেছে। তার মানে এই নয় যে, তারা বাজে খেলেছে। যোগ্যতম হিসেবেই তারা ফাইনালে। তথাপি কথা থেকে যায়, এবার ফাইনালের পথে জিদান-ক্লপের সঙ্গে আঁটার মতো লেগে ছিল ভাগ্য।
সেমিফাইনালের দুই লেগে বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে ৪-৩ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে ফাইনালে পা রাখে রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথম লেগে ২-১ গোলে এগিয়ে থাকা রিয়াল মঙ্গলবার রাতে ঘরের মাঠে ২-২ গোলে ড্র করে। রিয়াল-বায়ার্নের দ্বিতীয় লেগের ওই ম্যাচের পর বুধবার ছিল রোমা-লিভারপুলের সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগ। প্রথম লেগে ৫-২ গোলে এগিয়ে থাকা লিভারপুল বুধবার রাতে হজম করলো ৪ গোল। দুই লেগ মিলে তারা গোল করেছে ৭টি, খেয়েছে ৬টি। ফলে আক্ষেপটা থাকতেই পারে রোমার।
তারচেয়েও বড় কথা হলো- বায়ার্ন ও রোমা দুই লেগ মিলে মাত্র ১ গোলের ব্যবধানে হেরেছে। ফুটবল ভক্তরা মনে মনে কল্পনা করতেই পারেন- এখন ফাইনালটা যদি বায়ার্নের সঙ্গে রোমার হতো তাহলে কেমন হতো? কিন্তু তা তো আর হওয়ার নয়! কারণ, ইতোমধ্যেই যে শিরোপার ঘ্রাণ নিতে শুরু করেছে রিয়াল ও লিভারপুল। দুদলের সামনেই সুযোগ। দুদলই সেরাটা দিয়ে শিরোপা ঘরে তুলতে চাইবে।
দীর্ঘ ১৩ বছর পর লিভারপুলের সামনে বড় কোনও শিরোপা জয়ের হাতছানি। রোমার বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে ক্লপও মানছেন লিভারপুল ভাগ্যবান, তবে এটাও বলছেন ভাগ্য না থাকলে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল খেলা যায় না, ‘ফাইনাল আমাদের প্রাপ্য, এটা শতভাগ নিশ্চিত। আপনি ভাগ্য ছাড়া এগোতে পারবেন না। আজ রাতে (গতকাল) আমাদের ভাগ্যেন দরকার হয়ে পড়েছিল। রিয়াল মাদ্রিদেরও গতকাল (পরশু) এটা দরকার হয়েছিল। ব্যাপারটা এমনই। ছেলেদের এটা প্রাপ্য ছিল। ওরা যে সাহসিকতা দেখিয়েছে, যে ফুটবল খেলেছে—ব্যাপারটা পাগলাটে। আমি তো স্কোরই ভুলে যাচ্ছিলাম! কত ছিল, ৭-৬? অবিশ্বাস্য!’
তবে কিয়েভের ফাইনালে পরস্পর মুখোমুখি হওয়ার আগে ঘুরেফিরেই জিদান-ক্লপদের মাথায় হয়তো সেই কথাটাই ঘুরপাক খাচ্ছে- আহ্, অল্পে রক্ষা কপাল গুণে! খাদের কিনার থেকে কি বাঁচাই না বাঁচা গেল!  রেকিংনিউজ/

Leave A Reply

Your email address will not be published.