চাটমোহরে জমি দখলের অপচেষ্টা, গ্রেপ্তার ৩

0 ১৬৮

চাটমোহর (পাবনা) উপজেলা সংবাদদাতা : পাবনার চাটমোহর উপজেলার ডিবিগ্রাম ইউনিয়নের দাঁথিয়া কয়রাপাড়া গ্রামের ইস্কান্দার আলী গং একই গ্রামের আঃ মজিদ গং’র ভোগদখলীয় জমিতে ফসলের আবাদে বাঁধা দেওয়াসহ জোরপূর্বক জমি জবরদখলের অপচেষ্টা করছে মর্মে অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই সাথে তারা হাঙ্গামা সৃষ্টিসহ মিথ্যে মামলা-মোকদ্দমা দায়ের করে আঃ মজিদের পরিবারকে হয়রানীও করছে বলে অভিযোগ।

সোমবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সকালে ইস্কান্দার আলী গং জমি জবরদখল করতে গেলে আঃ মজিদ গং বাধা দেয়। কিন্তু ইস্কান্দার গং দেশীয় অস্ত্র নিয়ে প্রতিপক্ষকে তাড়া করে। পরে আঃ মজিদ থানা পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন দাঁথিয়া কয়রাপাড়া গ্রামের আক্কাস আলী মোল্লার ছেলে মোঃ কেসমত আলী (৩৫),আকবর আলী মোল্লার ছেলে মোঃ বজলুর রহমান (৪০) ও ইমান আলীর ছেলে আমজাদ হোসেন (৩৭)।

চাটমোহর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন জানান,অন্যের জমিতে অবৈধ অনুপ্রবেশ,মারধর ও হুমকির অভিযোগে ৩জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এলাকায় বর্তমানে শান্ত পরিবেশ বিরাজ করছে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থ গ্রহণ করা হচ্ছে।
এদিকে আঃ মজিদ অভিযোগ করে জানান,বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও প্রায় একশ’ বছরের বেশি সময় ধরে ভোগ দখলে থাকা জমি প্রতিপক্ষের হামলার ভয়ে আমরা চাষাবাদ করতে পারছিনা। ফলে দীর্ঘদিন যাবত প্রায় ১৮ বিঘা জমি অনাবাদী পরে রয়েছে। এ অবস্থায় প্রতিপক্ষ আজ জমি জবরদখলে অপচেষ্টা করে।
১৯৯৮ সালের ১১ আগস্ট এস্কেন্দার আলীর মাতার মৃত্যু হলেও ১৯৯৯ সালে মৃত মা কে জীবিত দেখিয়ে তাকে বাদী করে সুকৌশলে একটি মামলা করেছিলেন এস্কেন্দার আলী। বাদী মৃত ব্যক্তি হওয়ার বিষয়টি প্রমাণিত হলে ২০০৫ সালের ২৮ আগস্ট বিচারক ওই মামলাটিও খারিজ করে দেন।
চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দিন বলেন,আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখতে আমরা চেষ্টা করছি। যাতে কোনো ঝামেলা না হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.