জঙ্গিদের প্রশ্রয় দিয়ে ঐক্যের ডাক নতুন ষড়যন্ত্র-মেনন

0 769

9157_mnonবিডি সংবাদ টোয়েন্টিফোর ডটকম : জঙ্গিবাদ প্রশ্রয় দিয়ে জাতীয় ঐক্যের ডাক বিএনপির নতুন রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র বলে মন্তব্য করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।
বিএনপির জাতীয় ঐক্যের ডাক নাকচ করে দিয়ে মেনন বলেন, “জাতীয় ঐক্যের ডাক বিভক্তির, ষড়যন্ত্রের এবং জাতিকে নিষ্ক্রিয় করার। আমরা এই ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন হতে দেব না।”
মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘জঙ্গিবাদ-সাম্রাজ্যবাদ প্রতিহত কর, সর্বস্তরের জনগণের ঐক্য গড়’ ব্যানারে আয়োজিত এক সমাবেশে রাশেদ খান মেনন এসব কথা বলেন।
বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোট থেকে জামায়াতকে বাদ দেওয়া-সংক্রান্ত অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদের বক্তব্যের জবাব দেন মেনন।
তিনি বলেন, “জামায়াতকে বাদ দেবেন, ভালো কথা। কিন্তু আঁচলের নিচে রেখে দেবেন, এটা হয় না। জামায়াতকে বাদ দেবেন, আর আমেরিকাকে ডেকে আনবেন, এটাও হয় না। জামায়াতকে আঁচলের নিচে রেখে, জঙ্গিবাদ প্রশ্রয় দিয়ে জাতীয় ঐক্যের ডাক দেওয়া নতুন রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র।”
কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালিয়ে জঙ্গিদের হত্যার প্রসঙ্গে বিএনপি নেতাদের দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি। তিনি বলেন, “পেছনে কেন গুলি? সামনে কেন নয়? জঙ্গিদের কাপড়ে রক্তের দাগ কেন? এসব প্রশ্ন তোলার কারণ একটাই, আর তা হচ্ছে জঙ্গিদের প্রতি দরদ। আর এই দরদের মূলে রয়েছে জঙ্গিদের আশ্রয়-প্রশ্রয়। নতুবা জঙ্গিদের সামনে না পেছনে গুলি, সেটা কোনো আলোচনা বা সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয় হতে পারে না।”
গুলশান হামলার পর খালেদা জিয়ার দেওয়া বিবৃতিতে রক্তাক্ত অভ্যুত্থানের উল্লেখ করার বিষয়ে রাশেদ খান মেনন বলেন, “খালেদা জিয়া হেফাজতের তাণ্ডবের সময়ও অভ্যুত্থান দেখেছেন। বিডিআর বিদ্রোহে সেনা হত্যাও তার কাছে অভ্যুত্থান। আসলে বিএনপির চেয়ারপারসন ‘ঘর পোড়ার আগুনে আলু পোড়া’ দিচ্ছেন। এ জন্যই তিনি জঙ্গি হামলার পর সরকারকে ক্ষমতা ছেড়ে নতুন নির্বাচন দেওয়ার শর্ত দিয়েছেন।”
১৪ দলের এই নেতা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে বলেন, “আপনাকে ক্ষমতা দেওয়া হলে কী জঙ্গি হামলা বন্ধ হবে? যারা জামায়াতকে নিয়ে ঘর করে, তাদের দিয়ে জঙ্গি দমন সম্ভব নয়।”
সমাবেশে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি জানান, ৬ আগস্ট প্রতি জেলায় জঙ্গিবাদবিরোধী লাল পতাকা মিছিল করবে তার দল। এছাড়া ছাত্র-যুবক-কৃষক-শ্রমিকদের নিয়ে জাতীয় কনভেনশন করা হবে। তবে এর তারিখ জানাননি।
কর্মসূচি ঘোষণা করে মেনন বলেন, “বাংলা মা আবারও আক্রান্ত হয়েছে। মা, মাটি ও দেশকে রক্ষা করতে হবে। এই দেশ জঙ্গিদের ঘাঁটি হতে দেব না।”
ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, “এ পর্যন্ত যত জঙ্গি হামলা ও গুপ্তহত্যা হয়েছে, এর গোড়া খুঁজতে গেলে সেই জামায়াতকেই পাওয়া যাবে।”
সমাবেশে ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় নেতারাও বক্তৃতা করেন। সমাবেশ শেষে লাল পতাকা হাতে জঙ্গিবিরোধী একটি মিছিল প্রেস ক্লাব এলাকা প্রদক্ষিণ করে।ব্রেকিংনিউজ

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x