জাতীয় পতাকা বহণকারী মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে দাবিকারী আব্দুল মান্নান সরদারের ৮৮তম জন্মদিন পালন

0 ১২৫

ক্যাপশন ॥ জন্মদিনের আলোচনা সভায় লিখিত বক্তব্য দেন,আব্দুল মান্নান সরদার।

ঈশ্বরদী প্রতিনিধি: বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে ঢাকাস্থ আওয়ামীলীগ অফিস থেকে জাতীয় পতাকা বহণ করে দূর্যোগময় পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঈশ্বরদী আসার দাবীকারী আব্দুল মান্নানের ৮৮তম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনাসভা,কেক কেটে মিষ্টিমুখ করানো ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শনিবার রাত নয়টা থেকে ঈশ্বরদী উপজেলা প্রেসক্লাবে নিজেকে জাতীয় পতাকা বহণকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে দাবীকারী ঈশ্বরদীর এক সম্ভ্রান্ত আওয়ামী পরিবারের সন্তান আব্দুল মান্নান সরদারের পক্ষ থেকে এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ অরবিন্দ সরকার। এসময় ঈশ্বরদী উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও জাতীয় সাংবাদিক সোসাইটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সচীব তৌহিদ আক্তার পান্নার সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদাবীকারী আব্দুল মান্নান সরদার,উপজেলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি আশরাফুল আবেদীন,সহকারী অধ্যাপক নূরমোহাম্মদ খোকন,প্রভাষক নজরুল ইসলাম মুকুল, সাধারণ সম্পাদক এএ আজাদ হান্নান,বায়েজিদ বোস্তামি,ডাক্তার মাসুম হাসান ও জেলা যুবলীগনেতা আব্দুল্লাহ আল মামুর।

সভায় আব্দুল মান্নান সরদার দাবি করে লিখিত বক্তবে বলেন,ছৌত্রিশ বছর বয়সে আমি ১৯৭১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় যায়। ঢাকার বিভিন্নস্থানে থাকার পর ৩রা মার্চ স্টেডিয়াম মাঠের দক্ষিনে বঙ্গবন্ধুর মিটিংএ যোগ দেই। মিটিং থেকে বঙ্গবন্ধু জাতীয় পতাকা সারাদেশে পৌঁছে দেওয়ার জন্য সকলের প্রতি নির্দেশ দেন।

সেই নির্দেশেই আমি একটি ব্রিফকেসে চারটি পতাকা নিয়ে নানা দূর্যোগময় পরিস্থিতির মধ্যেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ৪ঠা মার্চ ঈশ^রদী চলে আসি। সেদিন বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে সারাদেশে গাড়ির চাকা বন্ধ থাকলেও বিশেষ ব্যবস্থায় এক ব্যক্তির সহায়তায় একটি গাড়িতে করে আমাকে আরিচা ঘাটে পৌঁছে দিলে আমি ড্রাম স্টিমার যোগে নদী পার হয়ে নগরবাড়ি ঘাটে পৌঁছায়। পরে একটি বাসে করে পাবনা শহরে ক্যাপ্টেন এম,মনসুর সাহেবের বাড়িতে পৌঁছলে তিনি একটি পতাকা রেখে দেন। পরে তিনটি পতাকা নিয়ে ঈশ্বরদী আসার পর আমি আওয়ামীলীগনেতা ফকির মো: নুরুল ইসলামের হাতে পতাকা তিনটি হস্তান্তর করি।

তিনি একটি পতাকা ঈশ^রদীতে রেখে বাকি দু’টি পতাকার একটি রাজশাহী ও অপরটি কুষ্টিয়ার জন্য পাঠিয়ে দেন। সভায় আব্দুল মান্নান সরদার দুঃখ প্রকাশ করে বলেন,এতকিছুর পরও আমাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়নি। আমার আবেদনটি সচীবালয়ে পড়ে আছে যার ডিজিআই নম্বর-১১৫৪২৫।

তবে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাকালিন ঈশ^রদীর এক সম্ভ্রান্ত আওয়ামী পরিবারের সন্তানের আবেদনটি সচীবালয়ে প্রক্রিয়াধীন আছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। পরে কেক কেটে জন্মদিন পালন শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.