ঝিনাইদহে কলেজের প্রভাষক হিজবুত তাহরীর কেন্দ্রীয় সদস্য পলাশকে গ্রেফতার !

0 3,149

mail.google.comজাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ : সিআইডি পুলিশ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে এসএম সাদিকুর রহমান পলাশ (২৯) নামে হিজবুত তাহরীর কেন্দ্রীয় এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। ওই সময় কম্পিউটার, পেনড্রাইভসহ কিছু বই উদ্ধার করা হয়।
তিনি ঝিনাইদহ সরকারি নূরুন নাহার মহিলা কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক (৩৪তম বিসিএস)।
সিআইডি পুলিশ রাত দুইটার দিকে যশোর সদরের উপশহর (সেক্টর-১, প্লট নম্বর-২০) সারথী মিল মোড়ের বাসা থেকে আটক করে।
সিআইডি যশোর ও কুষ্টিয়া বিভাগের বিশেষ পুলিশ সুপার শামসুল আলম শুক্রবার বেলা তিনটার দিকে তাদের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এসব তথ্য দেন।
তিনি বলেন, আটক প্রভাষক পলাশ যশোর সদরের আন্দোলপোতা গ্রামের মো. শাহজাহান আলীর ছেলে। তিনি পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী। সিআইডি পুলিশের বিশেষ জঙ্গিবিরোধী অভিযানে পলাশকে আটক করা হয়।
হিজবুত তাহরীর কেন্দ্রীয় সদস্য পলাশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালে ২০১২ সালে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনার সময় কাঁটাবন এলাকা থেকে শাহবাগ থানা পুলিশের হাতে আটক হন। ওইসময় তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে একটি মামলা হয়। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন।
তিনি বলেন, মামলার বিষয়সহ তথ্য গোপন করে পলাশ সরকারি চাকরিতে যোগদান করে শিক্ষার্থীদের মধ্যে জঙ্গি কার্যক্রমে উদ্বুদ্ধ করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
অভিযানে নেতৃত্বদানকারী সিআইডি পুলিশের যশোর অঞ্চলের সহকারী পুলিশ সুপার মোশাররফ হোসেন বলেন, এসএম সাদিকুর রহমান পলাশকে আটকের সময় তার ব্যবহৃত কম্পিউটার, পেনড্রাইভসহ কিছু ‘জেহাদি বই’ জব্দ করা হয়।
সাংবাদিকদের ব্রিফিংশেষে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে বলে সিআইডি কর্মকর্তারা জানান।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

আলোচিত সংবাদ কালীগঞ্জের এমপিকে জেএমবি পরিচয়ে হুমকি : বাস্তুহারা লীগ নেতার অস্বীকার !
ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ  সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারকে জেএমবি পরিচয়ে হত্যার হুমকি দেওয়ার সঙ্গে জড়িত নন বলে দাবি করেছেন কালীগঞ্জ উপজেল বাস্তুহারা লীগের সভাপতি রিপন জোয়ার্দার। একইসঙ্গে তাকে দল থেকে বহিস্কারের প্রতিবাদ করেছেন তিনি।
বৃহস্পতিবার রাতে কালীগঞ্জ শহরের একটি হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।
এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তাকে সংগঠন থেকে সরানোর জন্য একটি মহল ঘটনাটি সাজিয়ে তাকে দোষারোপ করছে।
লিখিত বক্তব্যে রিপন দাবি করেন, তিনি সংগঠনের একজন নিবেদিত কর্মী। তিনি এই বাস্তুহারা লীগকে কালীগঞ্জে উজ্জীবিত করেছেন।রিপনের ধারণা, শাহীন নামে এক ব্যক্তিকে দিয়ে কুচক্রী মহল ঘটনাটি ঘটাতে পারে।
রিপন বলেন, শাহিনকে দিয়ে আমি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অফিসে চিঠিপত্র পোস্ট করিয়েছি। কুচক্রীরা এই অপকর্মে তাকে ব্যবহার করে হয়ত এই কাজটি করিয়েছে।
বিষয়টি তদন্ত করে দেখার জন্য অনুরোধ করে রিপন বলেন, কোনো নোটিস ছাড়াই আমাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার অবৈধ।
উল্লেখ্য, গত ১৩ আগস্ট জেএমবি পরিচয়ে সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার ও বাস্তুহারা লীগের কালীগঞ্জ উপজেলা সভাপতি রিপন জোয়ার্দারকে সাত দিনের মধ্যে হত্যা করার হুমকি দিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে একটি রেজিস্ট্রি চিঠি আসে।
পরে সাংগঠনিক তদন্তে প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয় যে, বাস্তুহারা লীগ সভাপতি রিপন জোয়ার্দার স্বয়ং চিঠি পাঠানোর ঘটনায় জড়িত। বুধবার এ ঘটনায় রিপনকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করে জেলা কমিটি।
ঝিনাইদহ জেলা বাস্তুহারা লীগের সভাপতি ওবাইদুর রহমান মাসুদ ও সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম সংগ্রাম জানান, রিপন জোয়ার্দারের বিরুদ্ধে বরাবরই অনেক অভিযোগ ছিল। এছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার প্রাথমিক অভিযোগ পাওয়ায় তাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।
কালীগঞ্জ উপজেলা বাস্তুহারা লীগের সভাপতি নিজেকে প্রতিপক্ষ করে জেএমবির নামে হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি পাঠিয়ে টক অব দ্য টাউনে পরিণত হয়েছেন। তিনি এ চিঠি কৌশলে অন্যকে দিয়ে পোস্ট করিয়েছেন নিজের কাছে ও স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে।
কালীগঞ্জ উপজেলা বাস্তুহারা লীগ সভাপতি রিপন জোয়াদ্দার এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। আর এ চিঠি যাকে দিয়ে পোষ্ট করানো হয়েছে তার সঙ্গে রিপন জোয়াদ্দারের কথোপকথনের অডিও ফাঁস হওয়ায় এ ঘটনা জানাজানি হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x