ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিক তানিমের বিরুদ্ধে মামলা

0 ৪৬

রাবি প্রতিনিধি : ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) প্রেসক্লাবের সাবেক সহ-সভাপতি সাংবাদিক ও কলামিস্ট সরদার হাসান ইলিয়াস তানিমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে ঔষধ প্রস্তুত ও বিপনন প্রতিষ্ঠান দি একমি ল্যাবরেটরীজ লিমিটেড।

ঢাকা সাইবার ট্রাইবুনাল এ মামলা দায়ের করেছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পিবিআই সূত্র জানায়, ঢাকা সাইবার ট্রাইবুনালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৪/২৫/২৯ ধারায় একমি ল্যাবরেটরীজ লিমিটেড বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছে। মামলা নম্বর ৩৩১/২০২৩।

জানা গেছে, গতবছরের ফেব্রুয়ারী মাসে তিনি একমির বিরুদ্ধে অবৈধ মার্কেটিং পলিসি ও অসাধু ডাক্তারদের ঘুস দিয়ে রোগীদের ব্যবস্থাপত্রে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ঔষধ লিখিয়ে রোগীদের মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়ার অভিযোগ তোলেন সাংবাদিক তানিম। একইসঙ্গে মানহীন কাঁচামাল দিয়ে বাংলাদেশের মার্কেটে ঔষধ বিপনন করার অভিযোগ তোলেন এ সাংবাদিক। এতে একমির মালিকপক্ষ ও ম্যানেজমেন্টের রোষানলে পড়েন তানিম।

শুধু তাই নয়, বিভিন্ন ধরনের হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে একমি গ্রুপ। সবশেষ তানিমকে কোনোভাবে সত্য কথা বলা থেকে বিরত রাখতে না পারায় তার বিরুদ্ধে দেশের বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়েছে একমি গ্রুপ। এর আগে চলতি বছরের মে মাসে সাংবাদিক সরদার হাসান ইলিয়াসের বিরুদ্ধে বরিশাল ও পিরোজপুর জেলার বিজ্ঞ সিনিয়র ম্যাজিস্ট্রেট  আদালতে মামলা দায়ের করেছে একমি গ্রুপ।

এদিকে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও তার পরিবারের ওপর পরিকল্পিত ষড়যন্ত্রমূলক নিপীড়ন বন্ধ করার দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে সেচ্ছাসেবী সংগঠন রিভারসাইড ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট।

এছাড়াও বিভিন্ন সাংবাদিক সংগঠন এমন হয়রানিমূলক মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। রিভারসাইড ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সদস্য সচিব প্রফেসর ড. ইমতিয়াজ ফারুক স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, বিবৃতিতে, দেশের চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতায় সাংবাদিক হিসেবে সরদার হাসান ইলিয়াস তানিম ন্যায়বিচার থেকে বঞ্চিত হতে পারেন বলে শঙ্কা প্রকাশ করা হয়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, এর আগে সংবাদ প্রকাশের জেরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার দলীয় নেতা-কর্মীরা সরদার হাসান ইলিয়াস তানিম ও তার পরিবারের উপর বর্বরোচিত আক্রমণ ও নির্যাতন চালিয়েছে। বিবৃতিতে স্বাক্ষরকারীরা হলেন- প্রফসর ড. হাসিব বুলবুল, প্রফেসর ড. আবু তৈয়্যেব, প্রফেসর ড. আ.ন.ম তারেক সামসুজ্জামান, প্রফেসর ড. তানভীর সিদ্দীকী, প্রফেসর ড. রওশন জামান, প্রফেসর ড. মুনতাসির শিবলী, প্রফেসর ড. আছাদুল ইসলাম, প্রফেসর ড. গোলাম মোর্শেদ, প্রফেসর ড. সাওরা বেগম শায়লা, প্রফেসর ড. আশরাফ খাঁন চৌধূরী, প্রফেসর ড. আ.হ.ম মাহমুদ, প্রফেসর মনিরুল ইসলাম, প্রফেসর অহিদুজ্জামান, প্রফেসর বজলুর রহমান, সাংবাদিক রকিবুল হাসান প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.