ড্র হওয়ায় কষ্ট পেয়েছেন জিদান!

0 20

খেলাধুলা ডেস্ক : ন্যু ক্যাম্পে প্রথমার্ধে ভালো খেলছে রিয়াল মাদ্রিদ! ম্যাচে তো একটি গোলও পেয়ে গিয়েছিল তারা। কিন্তু অফসাইডে সেটা বাতিল হয়। ১৭ বছর পর প্রথমবার গোলশূন্য ড্রয়ে শেষ হয় এল ক্লাসিকো। দোর্দণ্ড প্রতাপ দেখিয়েও বার্সেলোনাকে হারাতে না পারায় হতাশ রিয়াল কোচ জিনেদিন জিদান।

৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে না পারার আক্ষেপ থাকাই স্বাভাবিক। প্রথমার্ধে ১২টি শট নিয়েছিল রিয়াল। ২০০৩-০৪ মৌসুমের পর থেকে বার্সার ঘরে প্রথমার্ধে এত শট আগে কখনও নেয়নি তারা। সুযোগ পেয়েও গোলমুখ খুলতে পারেনি মাদ্রিদ ক্লাব। তাই ফল নিয়ে খুশি হতে পারছেন না প্রথম রিয়াল কোচ হিসেবে ন্যু ক্যাম্পে টানা ৫ ম্যাচ অজেয় থাকার রেকর্ড গড়া জিদান।

ম্যাচ শেষে ফরাসি কোচ বলেছেন, ‘আমার কাছে এই ফল যথেষ্ট ভালো নয়। আমরা আরও অনেক কিছু করতে পারতাম। কিন্তু ফুটবল এমনই। সুযোগ পেলে গোল করতে হবে আপনাকে। আমরা এটাই কাজে লাগাতে পারিনি বেশ কয়েকবার। পুরো ৯০ মিনিট আমরা ম্যাচে মনোনিবেশ করেছিলাম। ক্লাসিকোটা দারুণ হয়েছে, একটি ভালো ফুটবল ম্যাচ। শুধু গোলের অভাব ছিল।’

তবে খেলোয়াড়দের চেষ্টায় খুশি জিদান, ‘প্রত্যেকে ভালো খেলেছে। বেলের জন্য দারুণ ম্যাচ ছিল। ক্রুস (টনি) ও ফেডে (ভালভার্দে) তাদের পজিশনে এবং রাফায়েল (ভারান), সের্হিয়ো (রামোস)… প্রত্যেকে (ভালো খেলেছে)।’

হারের পর রেফারিং নিয়ে বেশ চটেছেন রিয়াল অধিনায়ক সের্হিয়ো রামোস। ডিবক্সের মধ্যে রাফায়েল ভারান দুটি ‘স্পষ্ট’ ফাউলের শিকার হলেও ভিএআর কেন ব্যবহার করা হলো না প্রশ্ন তার। প্রথমার্ধে বক্সের মধ্যে ক্লেমন্ত লংলের চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েন ভারান। এরপর একটি কর্নারের সময় তার জার্সি টেনে ধরেন ইভান রাকিতিচ। রেফারি আলেজান্দ্রো হোসে হের্নান্দেজ পেনাল্টি তো দেনইনি, এমনকি ভিএআরে যাচাই করেননি।

মুহূর্ত দুটির ফুটেজ বিরতির সময় দেখেছেন রিয়াল অধিনায়ক। ক্ষুব্ধ কণ্ঠে রামোস বলেছেন, ‘বিরতির পর আমরা ফুটেজ দেখেছি এবং এগুলো (ফাউল) ছিল স্পষ্ট। দুটিই পেনাল্টি ছিল। কিন্তু আমরা এখন আর কিছু পাল্টাতে পারবো না। ভিএআর সহায়ক হিসেবে ম্যাচে ব্যবহার করা হয়। আমাদের দুর্ভাগ্য।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.