তানোরে সফল চেয়ারম্যানদের অন্যতম আবুল কাশেম

0 ২৬১

মনিনরুজামান মনি,  তানোর প্রতিনিধি: প্রতিটি মানুষের স্বপ্ন থাকে। কিন্তু স্বপ্নের পথে পা বাড়ালেই একের পর এক আসতে থাকে প্রতিবন্ধকতা। যে ব্যক্তি এসব প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে এগিয়ে যাবেন তিনিই হবেন সফল। আজ এমনই একজন সমাজ সেবক নিয়ে কথা বলব। যিনি অনেক বাধা ও প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে একজন সফল ব্যক্তি হিসাবে দুই দুই বারের তালন্দ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন । আবুল কাশেম চেয়ারম্যান মানুষের প্রত্যাশা পূরণে নিরন্তর অতীতে কাজ করেছেন বর্তমানে করে যাচ্ছেন।

 

তারপরও মানুষের প্রত্যাশা থাকে। তিনি, তাঁর পরিশ্রম, সাহস, ইচ্ছাশক্তি, একাগ্রতা আর প্রতিভার সমন্বয়ে সাধারণ মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য, স্থানীয় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড সঠিক ও সুচারুভাবে বাস্তবায়নের জন্য, সর্বোপরি শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশের যে স্বপ্ন রয়েছে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য এবং আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের জয়লাভের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তিনি ২য়বার চেয়ারম্যান নির্বাচিত দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই উল্লেখযোগ্য উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রেখে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনে আরো বেশি সক্ষম হয়েছেন।

 

এলাকার হতদরিদ্র মানুষের উন্নয়নে তাঁর নিরন্তর প্রয়াস সব মহলেই প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান, সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে এলাকায় নিজের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। তার সাথে আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তির আরো উজ্বল হয়েছে। যার কাছে আওয়ামীলীগ বা বিএনপির কর্মী বলে কোন কথা নেই।

 

তার নির্বাচনী এলাকার জনগন এটাই তার কাছে বড় পরিচয়। বিগত দিনগুলোতে তিনি তালন্দ এলাকার মানুষের মনে তার কাজের মাধ্যমে জায়গা করে নিয়েছেন। তার বাবা ছিলেন দানবীর।এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহমসজিদ,মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তাদের পারিবারিক সম্পত্তিতে। এসবগুনাবলী থাকার জন্য ইউনিয়নবাসী তাকে দুইবার নির্বাচিত করেছে।আবার ও আওয়ামী লীগ দল থেকে তাকে যদি দলীয় প্রার্থী করা হয়, শতভাগ বিজয়ী হবেন বলে জানান তিনি।

 

এ বিষয়ে তালন্দ ইউনিয়ন পরিষদের দুই দুইবারের সফল চেয়ারম্যান আবুল কাশেম বলেন, এলাকাটি অভাবী মানুষের সংখ্যা বেশি,প্রথমত তাদের ভাগ্যের উন্নয়নে বেশী পরিশ্রম করতে হচ্ছে।  আমি আমার নিজস্ব প্রচেষ্টায় তাদের ভাগ্য উন্নয়নে সবসময় পাশে থাকতে চাই। পাশাপাশি সাধারণ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে আমার নিজের জীবন উৎসর্গ করতে চাই।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.