দুর্গাপুরে হাজী সম্মেলন অনুষ্ঠিত

0 ১২৬

দুর্গাপুর প্রতিনিধি: রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলায় নওপাড়া ইউনিয়নের হাজীদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে হাজী সম্মেলন-২০২৩। মঙ্গলবার (২১ মার্চ ) সকাল ১০টায় উপজেলার নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলম শফি,ও আলহাজ্ব মোঃ আনোয়ার হোসেনের সঞ্চালনায় হাজী সম্মেলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। দুর্গাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নজরুল ইসলাম।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা  মো: সোহেল রানা, আল-আরাফা ক্লিনিক রাজশাহীর পরিচালক আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান , ডাঃ মোঃ আনিসুর রহমান অধ্যক্ষ রাজশাহী হোমিও প্যাথলজি মেডিকেল কলেজ রাজশাহী। ডাঃ মোঃ সাইদুজ্জামান ফারুক মেডিকেল অফিসার, রাজশাহী হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ রাজশাহী । বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী মোঃ জহুরুল ইসলাম, নওপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ তোফায়েল আহমেদ, ইউপি সচিব জসিম উদ্দিন ।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। নওপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের   সদস্য  রুবেল হক, ইসলাম প্রামানিক, আব্দুল মালেক, শহিদুল ইসলাম, আজাদ আলী, আবুল কালাম, আমজাদ আলী, আবু সাঈদ, বেদানা বেগম, সাদিয়া সুলতানা আখি, মাজেদা বেগম, গ্রাম পুলিশ সহ উপস্থিত নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, নওপাড়া ইউনিয়নে এখন পর্যন্ত কেউ কখনো হাজী সম্মেলন করে নাই।

ইউনিয়ন হাজী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ আবুল হাসান শাহ তিনি বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল আলম শফি একজন ভালো মনের মানুষ। তিনি গরিব অসহায় দুঃখী মানুষের পাশে ও আলহাজ্ব ব্যাক্তিদের পাশে সবসময় ছিল বা আছেন। তিনি চেয়ারম্যান হওয়ার পর এই ইউনিয়নটাকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে দাঁড় করিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, তার বাবা একজন আলহাজ্ব ব্যক্তি ছিলেন। তার চিন্তা চেতনা সবকিছুতেই ন্যায় নীতি ও সততায় উন্নয়নে বিশ্বাসী। আমরা তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

সম্মেলনে বক্তারা হাজীদের করণীয় এবং হজ পরবর্তী নিয়ম-কানুনের বিষয়টি তুলে ধরেন।

অন্যাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন। আলহাজ্ব মোঃ আফসার খতিব তিনি বলেন শফি চেয়ারম্যান একজন উদার মনের মানুষ তিনি আমাদের বিপদে-আপদে সব সময় পাশে ছিলেন। তিনি একজন সৎ,শিক্ষিত ও নীতিবান ব্যক্তি।

আলহাজ্ব মোঃ ইয়াকুব মাস্টার তিনি বলেন নওপাড়া ইউনিয়নটা ইসলামের দিকটা  সুশৃংখল বদ্ধ, মাদকমুক্ত, বাল্যবিবাহ মুক্ত করেছেন।  আমরা সবাই ইউনিয়ন বাসী ও চেয়ারম্যান শফিকুল আলম এর জন্য দোয়া করি।

ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক বলেন, তিনি আমাদের জন্য আশীর্বাদস্বরূপ তিনি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হওয়ার পর আমরা নওপাড়া ইউনিয়নটা ডিজিটাল রূপ দিয়েছি। তিনি আলহাজ্ব  ব্যক্তিএবং ইউনিয়নের গরিব-দুঃখী মানুষের কথা সবসময় চিন্তা করেন। আমি তিন তিনবারের মেম্বার এর আগে অনেক চেয়ারম্যান পরিষদ আসছে কিন্তু শফি ভাইয়ের মতো সুচিন্তা কারও মধ্যে দেখি নাই। তিনি সত্যি একজন নওপাড়া  ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষের, তারুণ্যের অহংকার স্মার্ট চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন বলে আমি মনে করি।

সম্মেলনের উদ্যোক্তা ইউপি চেয়ারম্যান  মো.শফিকুর আলম বলেন, অনেকেই হজ পালন শেষে পরবর্তী করণীয় বিষয়টি মনে রাখতে পারেন না। তাদের জন্য অনুষ্ঠানের এ আয়োজন করেছি। সবার অংশ গ্রহন দেখে সত্যি আমি মুগ্ধ।
এসময় হাজীগণের মাঝে  উপহার সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

সম্মেলনে উপজেলার প্রায় দুই শতাধিক হাজীছাড়াও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনের শেষ অংশে সবার  সুস্বাস্থ্য কামনা করে সম্মেলনের মোনাজাতের মধ্য দিয়ে  সমাপ্ত  করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.