দেশব্যাপী আলোচিত এমটিএফই রাজশাহী’র ২ প্রতারক আটক

0 ৭৭

স্টাফ রিপোর্টার: মেটাভার্স ফরেন এক্সচেঞ্জ (এমটিএফই) অ্যাপের ফাঁদে ফেলে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া প্রতারক চক্রের ২ সদস্যকে আটক করেছে আরএমপি’র রাজপাড়া থানার পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৪ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২ টায় আরএমপি সদর দপ্তর কনফারেন্স রুমে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের পুলিশ কমিশনার বিপ্লব বিজয় তালুকদার এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান।

গ্রেফতারকৃত আসামিরা হলেন, রাজশাহী জেলার মোহনপুর থানার বিশুহারা গ্রামের শ্রী দিজেন্দ্রনাথ সাহার ছেলে শ্রী দিপেন্দ্রনাথ সাহা (৪৩) ও নওগাঁ জেলার মহাদেবপুর থানার মহাবেদবপুর গ্রামের মো: আব্দুর রশিদের ছেলে, মো: লতিফুল বারী বাবু (৪২)।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, দুবাই হতে পরিচালিত কানাডা ভিত্তিক মেটাভার্স ফরেন এক্সচেঞ্জ (এমটিএফই) অ্যাপের ফাঁদে ফেলে সাধারণ জনগণের কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। এর ফলে হাজার হাজার যুবক তাদের জমানো টাকা হারিয়ে হয়েছেন দিশেহারা।

আলোচিত বিষয়টি নিয়ে সাম্প্রতিক এমটিএফই অ্যাপের বিরুদ্ধে বিভিন্ন গনমাধ্যমে সাংবাদ প্রচার হয়। সাংবাদটি আলোচিত হলে গত ২৩ জুলাই রাজশাহী’র জজ কোর্টের বিজ্ঞ অ্যাডভোকেট জহুরুল ইসলাম বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য রাজপাড়া থানা পুলিশ, সিআইডি ও পিবিআইকে নির্দেশ প্রদান করেন।

উক্ত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তদন্তকারী সংস্থা ঘটনার সত্যতা পেয়ে আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করলে পুলিশের গ্রেফতার এড়াতে প্রতারকরা গা ঢাকা দেয়।

পরবর্তীতে আরএমপি’র রাজপাড়া থানা পুলিশের নেতৃত্বে সিআইডি রাজশাহী ও পিবিআই রাজশাহী’র যৌথ টিম গত বুধাবার (২৩ আগস্ট) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে রাজশাহী জেলার মোহনপুর থানা এলাকা হতে আসামিদের গ্রেফতার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামিরা নিজেদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে যা তদন্তের স্বার্থে যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

গ্রেফতারকৃত আসামিদের বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিজয় বসাক অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস্) ও মোহাম্মদ হেমায়েতুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অ্যাডমিন অ্যান্ড ফিন্যান্স)-সহ আরএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.