নরসিংদীতে প্রভাবশালীদের চাপে শিশু ধর্ষণের ঘটনা ৫ লাখ টাকায় নিস্পত্তি

0 755

narsingdiএম.এ. সালাম রানা, নরসিংদী : নরসিংদী জেলার বেলাব উপজেলার চর বেলাব গ্রামের চাঞ্চল্যকর শিশু ধর্ষণের ঘটনায় গ্রামীণ এক সালিশী দরবারে ৫ লক্ষ টাকার বিনিময়ে মিমাংসার নামে বেআইনী ভাবে ধামাচাপা দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দীর্ঘ ৪ মাস পর চাঞ্চল্যকর শিশু ধর্ষনের ঘটনায় ধর্ষক সাদ্দাম হোসেন বাবুকে থানা পুলিশ গ্রেফতার করেন নি। ৯ নভেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের করেছে বেলাব থানা পুলিশ জানায়, ২৪ জুলাই চরবেলাব নামা পাড়া গ্রামের আল-আমিনের শিশু কন্যা ১ম শ্রেণীর ছাত্রী জ্যুতি আক্তার সায়মাকে প্রতিবেশি হোসেন আলীর বখাটে পুত্র সাদ্দাম হোসেন বাবু (২৫) প্রলোভন দেখিয়া পৈচাশিক ভাবে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার হত-দরিদ্র মা আছমা আক্তার বাদী হয়ে ধর্ষক সাদ্দাম হোসেন বাবুকে প্রধান আসামী করে বেলাব থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে একটি মামলা দায়ের করে। বেলাব থানা মামলা নং ৯ (৭)২০১৬। ঘটনার পর এলাকাবাসী ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন এ ব্যাপারে ধর্ষককে গ্রেফতার ও আইনানুগ বিচার দাবি করে মানববন্ধন সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট স্মারকলিপিও প্রদান করেছে। কিন্তু ঘটনার দীর্ঘ সাড়ে ৪ মাস অতিক্রম হলেও থানা পুলিশ পাশন্ড ধর্ষক সাদ্দামকে গড়িমশি দেখিয়া গ্রেফতার করেনি। সম্প্রতি এলাকার কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি অতি গোপনে বেলাব মুক্তিযোদ্ধা কার্যালয়ে এক সালিশী দরবারে বাদীনিকে ডেকে এনে প্রবল হুমকি দমকি প্রয়োগের মাধ্যমে ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার কথা বলে ধর্ষন মামলাটির নিস্পত্তির রায় প্রদান করেন। বেআইনী শালিশী দরবারে ধার্য্যকৃত ৫ লাখ টাকা ক্ষতিরপূরণের মাঝে ধর্ষিতার পরিবারকে নগদ ৫০ হাজার টাকা সহ পরবর্তীতে ৩ লাখ টাকা এবং বাকি ২ লাখ টাকা সংশ্লিষ্টদের ম্যানেজ করার জন্য সময় দেয়া হয়েছে বলে মামলার বাদী জানায়। প্রভাবশালীদের হুমকি দমকি ও চাপে পড়ে ৮টি সাদা স্ট্যাম্প সহ আপোষ মিমাংসা পত্রে আমার স্বাক্ষর দিতে বাধ্য করে। বেলাব ইউপি চেয়ারম্যান মো. গোলাপ মিয়া জানান, আমি মিমাংসাপত্রে স্বাক্ষর করে সালিশ থেকে চলে এসেছিলাম। পরবর্তীতে কি হয়েছে তা আমি অবগত নই। বেলাব থানার অফিসার ইনচার্জ মো. বদরুল আলম খাঁন এবং অত্র মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এস.আই. ফরিদ আহম্মেদ বলেন, মিমাংসার ব্যাপারে আমরা অবহিত নই। আসামীর বিরুদ্ধে আলামত সহ আদালতে অভিযোগপত্র দায়ের করা হয়েছে। সরকারের আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে সম্পূর্ণ বেআইনী ভাবে স্থানীয় প্রভাবশালীদের প্রবল চাপের মুখে  নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বিচারাধীন মামলার নিস্পত্তি করণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ সহ ধর্ষক সাদ্দাম এবং স্থানীয় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবী জানিয়েছেন, স্থানীয় মানবাধিকার সংস্থা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ  নেটওয়ার্ক (এনএনপিএন), জাতীয় নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরাম  (জেএনএনপিএফ) ও মাদারস ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি (এমডিএস)।

Leave A Reply

Your email address will not be published.