নলডাঙ্গায় নিম্নমানের সামগ্রীর ব্যবহার করে চলছে, সড়কের নির্মাণ কাজ

0 ৮৬
নাটোর প্রতিনিধি : নাটোরে নলডাঙ্গা উপজেলার পিপরুল ইউনিয়নের সেনভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়-টুলটুলি পাড়ার রাস্তায় নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে রাস্তার নির্মাণকাজ চলছিল। নিয়ম না মেনেই হচ্ছিল এ কাজ। এ নিয়ে ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করলে মঙ্গলবার দুপুরে কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন ইউএনও। এছাড়া কেন নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করা হচ্ছে এবং প্রকল্পটি কেন ভালো ভাবে তদারকি করা হয়নি এ বিষয়ে  সুস্পষ্ট ব্যাখ্য চাওয়া হবে উপজেলা প্রকৌশল কাছে ।
উপজেলা প্রকৌশলী অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নলডাঙ্গা সেনভাগ প্রকল্পের (ইজিপি) অধীন ৭ লাখ টাকা ব্যায়ে সেনভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় -টুলটুলি পাড়া কাঁচা রাস্তার ৫০০মিটার লম্বা এবং ৬ ফিট চওড়া এইচবিবি (হেরিংবন বন্ড) নির্মাণ কাজ করার জন্য টেন্ডার হয়।মেসার্স রফিক ট্রেডার্স কাজ পেয়ে  চার দিন আগে যথারীতি কাজ শুরু করে। শর্ত অনুযায়ী ৬ ইঞ্চি বালির ওপর ১ নম্বর ইট দিয়ে কাজ করার কথা।
কিন্তু কাজের গুণগত মান নিয়ে এলাকাবাসীর সন্দেহ হলে তারা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তি ও ইউএনও মহোদয় কাছে অভিযোগ করেন।  মঙ্গলবার(৬ জুন)সেনভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় -টুলটুলি পাড়ার ৩ নম্বর ইট দিয়ে রাস্তা নির্মাণের কাজ করছিলো ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজন। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রোজিনা আক্তার  বেলা১১টার সময় সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে তদারকির দায়িত্বে থাকা কাউকে পাননি এবং নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করায় কাজ বন্ধ করে দেন।
এবং তিনি বলেন , ভালোভাবে তদারকি করতে হবে। নিয়ম অনুযায়ী ঠিকাদারকে কাজ করতে হবে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, রাস্তা নির্মাণে রীতিমতো পুকুর চুরি হচ্ছিলো।  তদারকির কথা থাকলেও ফিরেও তাকাননি উপজেলা প্রকৌশলী অফিস। ফলে ইচ্ছেমতো কাজ করছিল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।
দীর্ঘদিন পর  রাস্তাটিতে কাজ শুরু হওয়ায় এলাকাবাসীর মনে স্বস্তি এলেও নির্মাণ কাজ দেখে তারা হতাশ। রাস্তায় নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারে এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন পর এই রাস্তার কাজ শুরু হওয়া শুভ লক্ষণ হলেও নির্মাণ কাজের অনিয়মের বিষয়টি ভাবিয়ে তুলেছে সবাইকে।
এ ব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিক রফিক হোসেন বলেন,ইটভাটা থেকে ভুলক্রমে এক ট্রাক ২ নম্বর ইট এসেছিল। তা ফেরত পাঠানো হচ্ছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী বেলাল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করার  হলে পাওয়া যায় নি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রোজিনা আক্তার বলেন, নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে রাস্তা নির্মাণের ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলীর কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হবে। জবাব পাওয়ার পর  ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.