নাটোরের ৪টি আসনে ১২ প্রার্থী বাতিল ৩১ প্রার্থীকে বৈধ ঘোষণা

0 ৫৪

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরের ৪টি আসনের মনোনয়ন পত্র বাছাই শেষে ৪৩ জনের মধ্যে ১২ জন প্রার্থীকে বাতিল ঘোষণা করেছে রিটার্নিং কর্মকর্তা। এতে বৈধ প্রার্থী সংখ্যা দাঁড়াল ৩১ জন। আজ সোমবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু নাসের ভুঁঞা মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাই শেষে এই ঘোষণা দেন। এ সময় প্রাথীরা সহ জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মনোনয়ন পত্র বাছাই শেষে নাটোর ১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনে ১৪ জনের দাখিলকৃত মনোনয়ন পত্রের মধ্যে ৫ প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল শেষে বৈধ প্রার্থী থাকলো ৯ জন। বৈধ প্রার্থীরা হলেন,জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বকুল, সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি স্বতন্ত্র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, লালপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক স্বতন্ত্র প্রার্থী শামীম আহমেদ সাগর ,জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি স্বতন্ত্র প্রার্থী আনিসুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজল রায়, ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও নাটোর জেলা শাখার সভাপতি অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল,জাতীয় পার্টির আশিক হোসেন, জাসদ (ইনু) জামাল উদ্দিন ফারুক ও বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির লিয়াকত আলী।

বাতিল করা হয়েছে যাদের, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ও বঙ্গবন্ধু প্রবীণ জোট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি স্বতন্ত্র প্রার্থী কর্নেল (অব.) রমজান আলী সরকার। তিনি ভোটার স্বাক্ষরে মৃত ব্যাক্তির নামে স্বাক্ষর করায় তাকে বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থী বাগাতিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য এস এম হুমায়ন কবির, গ্রাম পুলিশ এসকেন আলী এবং সায়েদুল হক তাদের ভোটার স্বাক্ষরে জাল প্রমানিত হওয়ায় তাদের মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। অপরদিকে ঋন খেলাপীর অভিযোগে জাসদ মনোনিত প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেনের মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে।

নাটোর ০২ আসন (সদর- নলডাঙ্গা) ৬ জন মনোনয়ন পত্র দাখিল করে। এর মধ্যে এক জনের মনোনয়ন বাতল করায় প্রার্থী থাকলেন ৫ জন। এই আসনে যাদের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে তারা হলেনÑআওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও বর্তমান সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সাবেক যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী স্বতন্ত্র প্রার্থী আহাদ আলী সরকার, জাতীয় পাটির মনোনিত প্রার্থী নূরুনবী মৃধা, বাংলাদেশ কংগ্রেস মনোনিত প্রার্থী বজলুল রশিদ ও জাসদ মনোনিত প্রার্থী শফিকুল ইসলাম। স্বতন্ত্র প্রার্থী কোরবান আলী ভোটার স্বাক্ষরে জাল স্বাক্ষর করায় তার মনোনয়ন পত্র বাতিল করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

নাটোর-৩ (সিংড়া) আসনে ১২ জনের মধ্যে ৪ জনের মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। যাদের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। তারা হলেন,আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট জুনাইদ আহমেদ পলক, স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম শফিক,জাকের পার্টির মোছাঃ রাকিবা হক,বিকল্পধারা বাংলাদেশ আনোয়ার হোসেন, তৃণমূল বিএনপির আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ কংগ্রেস আমিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন এর আলতাফ হোসেন, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির মিজানুর রহমান মিজান। আর যাদের মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। তারা হলেন, জাতীয় পার্টির ইঞ্জিনিয়ার আনিসুর রহমান, স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুন, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি রুস্তম আলী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শামসুল ইসলাম।

নাটোর ৪ আসনে (বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর) ১১ জন প্রার্থীর ম,ধ্যে বাতিল করা হয়েছে। যাদের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে তারা হলেন, আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী, স্বতন্ত্র প্রার্থী গুরুদাসপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আসিফ আব্দুরøাহ বিন কুদ্দুস শোভন স্বতন্ত্র প্রার্থী, স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহানারা বেগম, তৃনমুল বিএনপির প্রার্থী আব্দুল খালেক সরকার, জাকের পার্টি রবিউল করিম, বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির শান্তি রিবেরু, বিএনএম এর গাজী আবু সায়েম রতন ও জাতীয় পার্টির মনোননিত প্রার্থী আলাউদ্দিন মৃধা। মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে তারা হলেন, জেপি (মঞ্জু) সেলিম রেজা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সুজন আহমেদ।

জেলা রির্টানিং কর্মকর্তা ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু নাসের ভুঁঞা ৪৩ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিলের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপুর্ন পরিবেশে সম্পর্ন্ন করতে তাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। যাচাই বাছাই পর্বের শেষ দিনে ১২ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্রে জাল তথ্য উপস্থাপন করা সহ অনেক স্থানে তথ্য উপস্থাপন না করা বা নিজের স্বাক্ষর না করা এবং ঋন খেলাপী থাকায় সেসব প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.