নাটোরে পৃথক দুটি সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত ৩

0 ৫৬

নাটোর প্রতিনিধি: নাটোরে পৃথক দুটি সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণ গেল তিন জনের। নাটোরের লালপুরে থেমে থাকা লেগুনার পিছনে ট্রাকের ধাক্কায় প্রাণ গেল সিমা খাতুন নামের এক নারী ইপিজেড কর্মির। এই ঘটনায় আহত হয়েছে আরো অন্তঃত ৪ জন। বৃহস্পতিবার নাটোর-পাবনা মহাসড়কের কদিমচিলান এলাকায় এ দূর্ঘটনাটি ঘটে। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। নিহত সিমা খাতুন লালপুর উপজেলার কদিমচিলান গ্রামের মাজেদুল ইসলামের স্ত্রী ও ঈশ্বরদী ইপিজেড এর কর্মী।

নাটোরের বনপাড়া হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক আলিমুল ইসলাম ও স্থানীয়রা জানান, পাবনার ঈশ্বরদী ইপিজেড এর ভাড়া করা একটি লেগুনা পাবনা-নাটোর সহসড়কের কদিমচিলানে থেমে থেকে ইপিজেডের কর্মীসহ যাত্রী তুলছিল। এ সময় পাবনাগামী একটি ট্রাক পিছন থেকে ধাাক্কা দিলে লেগুনা সড়কের পাশের গর্তে পড়ে যায়।

এতে ঘটনাস্থলেই ইপিজেড কর্মী সিমা খাতুনের মৃত্যু ও আহত হয় আরো ৪ জন। খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। মরদেহটি উদ্ধারের পর পরিবারের পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ না থাকায় এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিদের অনুরোধে ময়না তদন্ত ছাড়াই পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে ট্রাক ও লেগুনা জব্দ করা হয়েছে। তবে ট্রাকের চালক ও চালকের সহকারী পালিয়ে যেতে সমর্থ হয়।

অপর দূর্ঘটনা ঘটে বুধবার রাত ১০ টার দিকে। নাটোরের বড়াইগ্রামে ট্রাকের সাথে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়। উপজেলার গড়মাটি কলোনী এলাকায় এ দূর্ঘটনাটি ঘটে। নিহতরা হল,উপজেলার গড়মাটির এলাকার সেনা সদস্য ডাবলু হোসেনর ছেলে মনন হোসেন ও একই উপজেলার রাজাপুর গ্রামের আবির হোসেন।
নাটোরের বড়াইগ্রামের বনপাড়া হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক আলিমুল ইসলাম ও স্থানীয়রা জানান, গড়মাটি বাজার থেকে মনন হোসেন মোটর সাইকেলে করে রাজাপুরের বন্ধু আবির হোসেনকে তার বাড়ীতে পৌঁছে দিতে যাচ্ছিল।

পথে গড়মাটি এলাকায় নাটোর-পাবনা মহাসড়কে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মাল বোঝাই ট্রাকের সাথে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। পরে ট্রাকটি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে সড়কের পাশের একটি গাছের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের দুই বন্ধুর মত্যু হয়। খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে।

তবে ট্রাকটি রেখে পালিয়ে যায় চালক ও তার সহযোগী। ট্রাকের চালককে আটকের জন্য পুলিশ অভিযান শুরু করেছে। নিহতদের পরিবারের সদস্যদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.