নিয়তির কাছে হার মানলেও জীবনের পরীক্ষায় উত্তীর্ন মমিন

0 377

মনিরুজ্জামান মনি, তানোর প্রতিনিধি : রাজশাহীর তানোরে গাছ কাটতে গিয়ে বিদ্যুতের তারে মর্মান্তিক মৃত্যু বরন করা মমিন  নিয়তির কাছে হার মানলে ও জীবনের পরীক্ষায়  পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়েছেন।  গত বছর ৩০শে ডিসেম্বর প্রকাশ হওয়া জেডএসসি ফলাফলে তার হতভাগা মা ও আত্নীয়স্বজন  জানতে পারেন মমিন (১৫)জেডএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়েছেন ।সে ইলামদহী দাখিল  মাদ্রাসা থেকে জিপিএ ২.৫৬ পেয়ে  উত্তীর্ন হয়েছেন ।সে উত্তীর্ন হওয়ার  খবর শুনে তার হতভাগা মা মঞ্জুয়ারা বেগম কান্নায় ভেঙ্গে পড়েনএবং ক্ষনিকের মধ্যে সেখানের  আকাশ বাতাস ভারি হয়ে উঠে।
উল্লেখ্য যে গত ২২ শে ডিসেম্বর দুপুর ২টার নারায়নপুগ্রামে শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে ১১হাজার ভোল্টে বিদ্যুতের তারে জডিয়ে আকস্মিক মৃত্যু হয় মমিনের। নিহত মমিন   উপজেলার পাঁচন্দর ইউপি এলাকার ইলামদহী  গ্রামের দিনমজুর  কাবিলের পুত্র ।সে এবার ইলামদহী দাখিল মাদ্রাসা থেকে জেডএসসি পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ন হয়েছেন। শুক্রবার উপজেলার পাচন্দর ইউপির ইলামদহী গ্রামের হামিদের পুত্র হালিম নারায়নপুর গ্রামের সাদেকের বাড়ীর সামনে একটি ছোট আমের গাছ কিনেন। সে গাছ কাটতে দুপুর ২টার দিকে শ্রমিক হিসেবে তার হতভাগা মাকে না জানিয়ে টাকার প্রলোভনে গাছের ডাল কাটতে নিয়ে  আসেন মমিনসহ আরো ২জনকে। গাছের ডালের ভিতর বা সামান্য উত্তর  দিক দিয়ে ১১ হাজার ভোল্টেজের লাইন দেয়া আছে। মমিন  গাছের ডাল কাটামাত্রই ১১ হাজার ভোল্টের তারে জডিয়ে পড়ে অবস্থায় দেখে গ্রামবাসী পল্লী বিদ্যুত অফিস ও থানায় খবর দেন।পরে থানা পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত করে শেষে শনিবারে দিন দাফন সম্পন্ন করেন গ্রামবাসী।শুক্রবারে রাত মমিনের মা মঞ্জুয়ারা বেগম  বাদি হয়ে হালিমকে আসামি করে তানোর  থানায় হত্যা মামলা দায়ের  করেন।ঘটনার পর থেকে পালিয়ে থাকা প্রভাবশালী আসামি হালিম ১২দিন পর জামিনে মুক্তি পেয়ে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য বাদিকে  প্রাননাশের হুকমি দিচ্ছেন
নাবালক মমিনের মা ছেলের ন্যায্য বিচারের জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এ বিষয়ে তানোর থানা অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,তাকে মামলা তোলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x